২০১২, ১৪ মার্চ। সিনেমা, বিশেষত বাংলা সিনেমার ইতিহাসে একটা ল্যান্ডমার্ক। মুক্তি পেয়েছিল ‘ভূতের ভবিষ্যত’। ডেবিউ ছবিতেই লেটার মার্কস পেয়েছিলেন পরিচালক অনীক দত্ত। ছকভাঙা চিত্রনাট্যে নতুন করে দর্শককে ভাবতে শিখিয়েছিলেন তিনি। ঠিক একই রকম প্রত্যাশা নিয়ে তাঁর পরের ছবি ‘আশ্চর্য প্রদীপ’ দেখতেই হলমুখী হয়েছিলেন আম-জনতা। তবে প্রথম ছবির মতো দ্বিতীয়টি ল্যান্ডমার্ক তৈরি করেনি বলে দাবি একটা বড় অংশের। কিন্তু অনীক মানেই তো অন্য রকম প্রত্যাশা। তাই তিনি যখন ফের মাঠে নামছেন তা নিয়ে দর্শকদের উত্তেজনা থাকবেই। এ বার ফোকাসে আগামী ১৪ জুলাই। সে দিনই মুক্তি পাবে অনীকের ঝুলির নতুন ছবি ‘মেঘনাদবধ রহস্য’।

আরও পড়ুন, ‘বাহুবলী ৩’ করতে গেলে একটা শর্ত দিলেন পরিচালক

গল্পটা কেমন? ‘‘ছবির নামের মধ্যেই ‘রহস্য’ শব্দটা থাকায় গল্পটা খুলে বলা মুশকিল। তবে রহস্যের উপাদান তো আছেই’’- বললেন পরিচালক। তিনি জানিয়েছেন, এ গল্প প্রাইভেট ডিটেকটিভের নয়। চলতি গোয়েন্দা গল্পের মতোও নয়। আবার মেঘনাদ বলে কোনও লোকের খুন নিয়েও গল্প নয়। তবে কি ‘মেঘনাধবধ কাব্য’ নিয়ে নতুন করে চিত্রনাট্য সাজিয়েছেন? অনীক শেয়ার করলেন, ‘‘মেঘনাদবধ কাব্যের ভূমিকা রয়েছে। কিছু রেফারেন্স রয়েছে। কিন্তু ওটা নিয়েই গল্পটা নয়।’’ বৃহস্পতিবার মুক্তি পাচ্ছে এই ছবির ডিজিটাল পোস্টার। সব্যসাচী চক্রবর্তী, আবির চট্টোপাধ্যায়, গার্গী রায়চৌধুরীর অভিনয় সমৃদ্ধ করেছে ছবিটিকে। 

‘ভূতের ভবিষ্যত’-এর পর যে প্রত্যাশা তৈরি হয়েছিল পরিচালকের কাছে, তা এই নতুন ছবিতেও থাকবে। পূরণ হবে তো? অনীকের কথায়, ‘‘আমি নিজের সাধ্যমতো ছবি করার চেষ্টা করি। নিজের প্রত্যাশাও পূরণের চেষ্টা করি। দর্শকদের ভাল লাগলে তো ভালই।’’

দর্শকদের একটা বড় অংশের প্রশ্ন, অনীক কেন এত কম ছবি করেন? হেসে উত্তর দিলেন, ‘‘অনেক কারণ রয়েছে। সবটা তো বলা সম্ভব নয়। তবে আমি খুব অলস। সব সময় ছবি করতে ইচ্ছেও করে না। আর ছবি তৈরি আমার কাছে বিনোদন, জীবিকা নির্বাহ নয়। পুরোটা গোছাতে সময় লাগে আমার। যখন প্রস্তুত তখনই ছবি করা উচিত বলে মনে করি।’’