• মৌসুমী বিলকিস
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘কৃষ্ণকলি’র শুটিংয়ের আগে কী করেন নিখিল-শ্যামা?

celebs
শুটিংয়ের আগে নিখিল-শ্যামা।

প্রচণ্ড গরমে আউটডোর শুট। পারদ চড়ছে। ইউনিট সদস্যরা প্রবল ঘাম মুছতে মুছতেই কাজ করছেন। চড়া আলো ছেঁকে কিছুটা নরম করে নিতে মন্দিরের মাথায় উঠে স্কিমার টাঙাচ্ছেন লাইট বয়রা। অপেক্ষাকৃত নরম এই আলোয় দাঁড়িয়ে অভিনয় করবেন আজকের নায়িকা-নায়ক শ্যামা ও নিখিল। অর্থাত্ তিয়াসা এবং নীল। ধারাবাহিক ‘কৃষ্ণকলি’র মন্দিরের বাইরের রাস্তায় ও মন্দিরের ভেতরের দৃশ্য। পুজো দেবেন নায়িকা নায়ক। শুটের ফাঁকে কী করলেন তাঁরা?      

শ্যামা ও নিখিল রাস্তায় দাঁড়িয়ে দীর্ঘ সংলাপ ঝালিয়ে নিচ্ছেন। আলো, ক্যামেরা ও শিল্প বিভাগের কর্মীরা রেডি হলেই শুরু হবে পরবর্তী শুট। তার মধ্যেই তিয়াসা বললেন, “আমি আর জিতুদা (নীল) দুজনেই ঘুমোতে খুব ভালোবাসি। জিতুদার যখন ক্লোজ হচ্ছিল আমি গাড়ির মধ্যে এসে ঘুমিয়ে পড়েছি। আবার যখন আমার ক্লোজ হচ্ছে জিতুদা গাড়িতে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়ছে। এইভাবে চলছে...। প্র...চণ্ড গরম! হঠাৎ দেখি একটা আখের রসওয়ালা। সবাই মিলে আখের রস খেলাম। এত্ত গরম! কী আর করি? তার মধ্যে অনেক প্রবলেম আউটডোরে... গাড়ি, লোকজন... সেগুলো নিয়েই...সেগুলো সলভ করতে করতেই শুট করছি... মজাও করছি এই গরমের মধ্যেই (হাসি)।”

নিখিল সঙ্গত দিলেন, “আমরা একটু ফাঁক পেয়েই ঠিক আখের রস খাই... দু’গ্লাস করে... তিয়াসা পুরোটা পারেনি। ওরটাও আমি খেয়ে ফেলেছি। আমার মনটা তো বড়...(মৃদু হাসি)... তা-ই...। আমাদের বণ্ডিং বেশ ভাল... খাওয়ার বন্ডিং...।”

আরও পড়ুন, ‘নিকাহ’র সেই সালমা আগা এখন কী করেন জানেন?

কী রকম? নিখিল বললেন, “নীল আর তিয়াসার একটা ভীষণ মিল যে দুজনেই খেতে ভালোবাসি। তিয়াসার ভীষণ লেগ পুলিং করি আমি। ও অনেক বার ডায়েটিং-এর চেষ্টা করেছে। কিন্তু যেই চোখের সামনে চিপসের প্যাকেট, কোল্ড ড্রিংকস দেখে, ডায়েটিং যে কোথায় জানলা দিয়ে উড়ে বেরিয়ে যায়... সেটা ও বুঝতে পারে না... হা হা... আমার বেশ মজা লাগে ব্যাপারটা। আমরা কখনও কখনও ফুচকা খেতে চলে যাই, তেরো নম্বর স্টুডিওর উল্টোদিকে কয়েকটা রেস্টুরেন্ট আছে সেখানে খেতে চলে যাই। আমাদের খাওয়াদাওয়া নিয়ে ভীষণ কানেকশন আছে।”  


চিত্রনাট্য পড়ে নিচ্ছেন শ্যামা-নিখিল।

শ্যামার নাম নিয়ে নাকি যা খুশি বলেন নিখিল। শ্যামা রেগে যান না? নিখিল মজা পেয়ে বললেন, “ওর নাম তো শ্যামা... আমি অনেককিছু বলি... শ্যামজি(জ-Z এর মতো উচ্চারণ), শ্যামাচন্দ্র... অনেককিছু বলি... হা হা হা... আমরা বন্ধু... । ও ভীষণ স্পোর্টিংলি নেয়। ও-ও হয়তো হালকা মজা করে... এটাই ওর খুব ভাল একটা ব্যাপার।”

দেখুন, বিনোদনের নানা কুইজ

শ্যামা হেসেই চলেছেন। তার মধ্যেই শট রেডি। এক্ষুনি দাঁড়াতে হবে ক্যামেরার সামনে। শ্যামা ও নিখিল বিদায় নিলেন। পরিচালকের নির্দেশ ভেসে এল গরম হাওয়ায়, ‘রোল সাউণ্ড’, ‘রোল ক্যামেরা’, ‘অ্যাকশন’।

(টলিউডের প্রেম, টলিউডের বক্স অফিস, বাংলা সিরিয়ালের মা-বউমার তরজা -বিনোদনের সব খবর আমাদের বিনোদন বিভাগে।) 

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন