Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

ফেরার দীপিকার ম্যানেজার, আরও বাড়ছে বলিউডে মাদককাণ্ডের রহস্য

নিজস্ব প্রতিবেদন
৩০ অক্টোবর ২০২০ ০৯:০০
বলিউড মাদক যোগে এখন বহুল চর্চিত একটি নাম করিশ্মা প্রকাশ। দীপিকা পাড়ুকোনের ম্যানেজার করিশ্মার বাড়ি থেকে ১.৭ গ্রাম চরস, ২ বোতল সিডিবি অয়েল পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো-র।

করিশ্মাকে দ্বিতীয় বার সমনও পাঠিয়েছে এনসিবি। কিন্তু অভিযুক্ত করিশ্মা এখনও ফেরার।
Advertisement
মঙ্গলবার তাঁর বাড়িতে অভিযান চালায় এনসিবি। সে সময়ই উদ্ধার হয় মাদক। অভিযুক্ত করিশ্মাকে না পেয়ে তাঁর বাড়ির লোকের হাতে সমন দিতে চেয়েছিলেন তদন্তকারীরা।

কিন্তু এনসিবি সূত্রের খবর, করিশ্মার অনুপস্থিতিতে তাঁর পরিজনরা সেই সমন নিতে রাজি হননি। শেষ অবধি মুম্বইয়ের ভারসোভায় তাঁর বাড়ির দরজায় আটকে দেওয়া হয় নোটিস।
Advertisement
নোটিসে বলা হয়েছিল করিশ্মা যেন বুধবার এনসিবি-র মুখোমুখি হন। কিন্তু বুধবার করিশ্মা হাজির হননি এনসিবি-র সামনে। তাঁর তরফে গরহাজিরার কারণও কিছু দর্শানো হয়নি। এর পরই তাঁকে দ্বিতীয় বার সমন পাঠানো হয়।

জাতীয় পুরস্কারজয়ী প্রযোজক মধু মন্টেনার সংস্থা ‘কোয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি’-তে কাজ করেন করিশ্মা।

কাজের সূত্রেই পরিচয় দীপিকার সঙ্গে। দীর্ঘ দিন তিনি কাজ করছেন দীপিকার ম্যানেজার হিসেবে।

সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যুর পরে বলিউডের মাদক যোগ প্রসঙ্গে প্রথম থেকেই করিশ্মার নাম ছিল আলোচনার কেন্দ্রে।

বেশ কয়েক জন বলি তারকার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট এনসিবি-র হাতে আসে। সেই চ্যাটেই দেখা যায়, ‘ডি’ এবং ‘কে’ নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে মাদক প্রসঙ্গে একাধিক বার কথা চালাচালি হয়েছে।

কখনও ‘ডি’, ‘কে’-কে গাঁজা আছে কি না জিজ্ঞাসা করছেন। আবার কখনও বা ‘কে’ তাঁকে (ডি’কে) গাঁজার হদিশ দিচ্ছেন।

বলিউডের একাংশের দাবি এই ‘ডি’ হলেন দীপিকা নিজেই। আর ‘কে’ অর্থাৎ দীপিকার ম্যানেজার করিশ্মা।

করিশ্মা আবার সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার জয়া সাহারও ঘনিষ্ঠ বন্ধু। এই জয়ার সঙ্গেই রিয়া চক্রবর্তীর মাদক সংক্রান্ত চ্যাট কিছু দিন আগে ফাঁস হয়েছিল। জয়া রিয়াকে লিখেছিলেন, “সুশান্তের চায়ে ৪ ফোঁটা মিশিয়ে দিয়ো। ৩০/৪০ মিনিটের মধ্যেই ফল টের পাবে।’’

বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছিল, জয়া হয়তো রিয়াকে ৪ ফোঁটা সিবিডি (ক্যানাবিডিয়ল) ঢেলে দিতে বলেছিলেন সুশান্তের চায়ে। সিবিডি আদতে গাঁজা থেকে তৈরি এক ধরনের তেল জাতীয় পদার্থ।

জয়াকে জেরা করেই করিশ্মার নাম জানতে পারেন তদন্তকারীরা। তার পর সেই সূত্র ধরে উঠে আসে দীপিকার নাম। তিন জনকেই জেরা করেছে এনসিবি। তাঁদের মধ্যে করিশ্মাকে দ্বিতীয় বার সমন পাঠানো হল।

এই পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠছে, তা হলে কি দীপিকাকেও আবার ডাকতে পারে এনসিবি? শ্রদ্ধা কপূর, রাকুলপ্রীত সিংহ, সারা আলি খানও কি নতুন কোনও বিপদের মুখোমুখি হতে চলেছেন? সবচেয়ে বড় প্রশ্ন, কোথায় উধাও হলেন করিশ্মা?

দীপাবলির আগে আবার জল্পনা তুঙ্গে টিনসেল টাউনে।