×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৩ মে ২০২১ ই-পেপার

বিরজু মহারাজের সরকারি বাংলোর মেয়াদ বাড়ল আরও ২২ দিন

সংবাদসংস্থা
নয়াদিল্লি ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ ১৪:০৩
বিরজু মহারাজ।

বিরজু মহারাজ।

প্রবীণ কত্থক শিল্পী বিরজু মহারাজকে সরকারের দেওয়া বাংলোটি খালি করতে বলেছিল কেন্দ্র। ৩১ ডিসম্বরের মধ্যে বাংলোটি খালি করার নির্দেশ দেওয়া হয় শিল্পীকে। বৃহস্পতিবার সেই নির্দেশে স্থগিতাদেশ দিল দিল্লি হাই কোর্ট। আগামী ২২ দিন তিনি ওই বাংলোতেই থাকবেন।

দিল্লি হাই কোর্টের বিচারপতি বিভু বাখরুরর বেঞ্চে ওঠে মামলাটি। বিচারপতি জানান, পরবর্তী শুনানি না হওয়া পর্যন্ত ওই বাড়ি খালি করতে হবে না শিল্পীকে। আগামী বছরের ২২ জানুয়ারি মামলাটির পরের শুনানির হবে বলে জানিয়েছে আদালত। সেই সঙ্গে এই মামলার অপর পক্ষ কেন্দ্রীয় নগর বিষয়ক ও আবাসন মন্ত্রকের কাছ থেকে এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়াও জানতে চেয়েছেন বিচারপতি বাখরু।

পদ্মবিভূষণ প্রাপ্ত বিরজু মহারাজ হাইকোর্টে তাঁর আবেদনে জানিয়েছিলেন, তিনি ভারতীয় সংস্কৃতির প্রায় লুপ্ত হতে চলা একটি শিল্পকলাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজে উৎসর্গ করেছেন জীবন। কত্থক নৃত্যশিল্পে তাঁর কৃতিত্বকে সম্মান জানিয়েই দেওয়া হয়েছিল সরকারি আবাসনের সুবিধা। এখন সেই সরকারই চাইছে তাঁকে সেখান থেকে সরিয়ে দিতে।

Advertisement

আদালতে বিরজুর হয়ে সওয়াল করেন বর্ষীয়ান আইনজীবী অখিল সিব্বল। তিনি বলেন, ‘‘বিশেষ ওই শিল্পকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ এখনও চলছে। প্রবীণ শিল্পীর কাজ এখনও অনেক বাকি। দিল্লিতে থেকে সাংস্কৃতিক আদানপ্রদানের যে সুযোগ তাঁরা পাচ্ছেন, তা আর কোথাও গেলে পাবেন না। তাছাড়া যে সব সংগঠনের সঙ্গে শিল্পী যুক্ত, সেগুলিও দিল্লিতেই। এখন সরকার যদি তাঁকে বাড়ি ছাড়তে বলে। তবে দিল্লিতে আর কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই তাঁর।’’

একা বিরজু মহারাজ নন, দিন কয়েক আগেই তিন বর্ষীয়ান শিল্পী ভারতী শিবাজি, ভি জয়রাম রাও ও বানারসি রাওকেও সরকারি বাংলো খালি করার নির্দেশ দেওয়া হয় কেন্দ্রীয় নগরবিষয়ক ও আবাসন মন্ত্রকের তরফে। বিষয়টিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে তাঁরাও দ্বারস্থ হয়েছিলেন হাইকোর্টের। এই বর্ষীয়ান শিল্পীদের অনুরোধ, অন্য পেশাদারদের মতো তাঁরা প্রচুর উপার্জন করেন না। তাই নিজ নিজ ক্ষেত্রে তাঁদের কাজের কথা মাথায় রেখেই বিষয়টি বিবেচনা করা হোক। নিয়মিত ও ন্যূনতম অনুমোদন মূল্যের বিনিময়ে তাঁরা যাতে আমৃত্যু সরকারি বাংলোতে থাকতে পারেন, তা নিশ্চিত করুক আদালত। এ ব্যাপারে নীতি প্রণয়নের নির্দেশ দিতেও দিল্লি হাইকোর্টকে অনুরোধ জানিয়েছেন বিশিষ্ট ও প্রবীণ শিল্পীরা।

আরও পড়ুন : ‘দুষ্টু লোক’ ধরতে পারেন জয়া বচ্চন, জানালেন বিগ বি

আপাতত আগামী ২২ দিন সরকারি বাংলোই ঠিকানা বিরজু মহারাজ-সহ কেন্দ্রের নোটিস পাওয়া অন্য প্রবীণ শিল্পীদের। ২২ জানুয়ারি দিল্লি হাইকোর্টে কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের প্রতিক্রিয়া জানার পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত হবে বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement