Advertisement
১৯ জুলাই ২০২৪

বাংলা লিখতে হলে

কম্পিউটার বা স্মার্টফোন — বাংলা হরফে লিখবেন কী করে? জানাচ্ছেন অরিজিৎ চক্রবর্তীউইনডোজ অপারেটিং সিস্টেমের ল্যাপটপ বা ডেক্সটপের জন্য দু’ভাবে বাংলা লেখার ব্যবস্থা হতে পারে। প্রথমত, যে কোনও বাজার চলতি সফটওয়ার ইন্সটল করে নিতে পারেন। অভ্র কিবোর্ড-এর মতো অনেক সফটওয়ার পেয়ে যাবেন বিনাপয়সায়।

শেষ আপডেট: ১২ নভেম্বর ২০১৫ ০০:০৫
Share: Save:

ডেক্সটপ বা ল্যাপটপের ক্ষেত্রে

উইনডোজ অপারেটিং সিস্টেমের ল্যাপটপ বা ডেক্সটপের জন্য দু’ভাবে বাংলা লেখার ব্যবস্থা হতে পারে।

প্রথমত, যে কোনও বাজার চলতি সফটওয়ার ইন্সটল করে নিতে পারেন। অভ্র কিবোর্ড-এর মতো অনেক সফটওয়ার পেয়ে যাবেন বিনাপয়সায়। যেখানে বাংলা হরফে লিখতে পারবেন উচ্চারণের মতো করেই। অর্থাৎ ইংরেজি কিবোর্ডেই টাইপ করবেন শব্দের উচ্চারণের মতো করে, আর কম্পিউটারে লেখা হবে বাংলা হরফে। যেমন, Anandabazar টাইপ করলেই লেখা হয়ে যাবে আনন্দবাজার। বাবা লিখতে হলে টাইপ করতে হবে baba, জল লিখতে হলে টাইপ করতে হবে jol — এ ভাবে।

তবে বাড়তি সফটওয়ার ইন্সটল না করেও কম্পিউটারে বাংলা লেখা সম্ভব। সেক্ষেত্রে উইনডোজে থাকা কিবোর্ডে বাংলা কিবোর্ড-টা শুধু অন করে নিতে হবে। প্রথমে উইনডোজের হোম বাটন থেকে Control Panel-এ যান। সেখানে All Control Panel Items-এ ক্লিক করুন। সেখানে থেকে Region and Language-এ যান। একটা নতুন উইনডো খুলবে। সেখানে Keyboards and Languages ট্যাবে যেতে হবে। ওখানেই পাবেন Change Keyboards অপশন। সেখানে ক্লিক করুন। এ বার Add Keyboard অপশন পাবেন। Bengali-তে ক্লিক করে Ok বাটন চাপুন।

ব্যস, এ বার বাংলা লিখতে পারবেন বাড়তি সফটওয়ার ছাড়াই। তবে কিবোর্ডের লেআউট একটু অন্যরকম হবে। যেমন, j অর্থাৎ র, k হল ক আর Shift+k হল খ। অনেকের মতে এতে টাইপ করা অনেক সুবিধার। অনেক ওয়েবসাইটেই কিবোর্ড লেআউট পেয়ে যাবেন। কয়েক দিন একটু দেখে দেখে টাইপ করলে দেখবেন অভ্যাস হয়ে যাবে। বাংলা আর ইংরেজি কিবোর্ডের মধ্যে ঘোরাফেরার জন্য একসঙ্গে Shift+Alt বাটন চাপলেই হবে।

ম্যাকবুকের ক্ষেত্রে

উইনডোজের মতো ম্যাক প্ল্যাটফর্মেও অনেক ফোনেটিক বাংলা লেখার অ্যাপ পেয়ে যাবেন। আইঅভ্র বা বাংলা কিবোর্ড ইন্সটল করে নিলে শব্দের উচ্চারণের মতো লিখলে সহজেই ইউনিকোডে বাংলায় লিখতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রেও বাংলা কিবোর্ড অন করে নেওয়াই ভাল। সেক্ষেত্রে System Preferences-এর মধ্যে Language & region-এ নতুন কিবোর্ড যোগ করার ব্যবস্থা আছে। সেখানে ‘Bangla – QWERTY’ কিবোর্ড অন করে নিন। তবে মনে রাখবেন কিবোর্ড লেআউট স্বাভাবিক ভাবেই অন্যরকম হবে। এক্ষেত্রেও কিবোর্ড লেআউট কোনও ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করে, তার একটা প্রিন্টআউট নিয়ে রাখুন। সপ্তাহখানেক অভ্যেস করলে দেখবেন আয়ত্তে এসে যাবে।

স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে আইফোন/আইপ্যাড

বাড়তি অ্যাপ ইন্সটল করে নিতেই পারেন। অ্যাপস্টোরে পেয়েও যাবেন এমন অনেক বিনাপয়সার অ্যাপস। তবে অপারেটিং সিস্টেমের কিবোর্ডে বাংলা হরফটা চালু করে নেওয়াই ভাল। ইমোজি কিবোর্ড যেভাবে অন করেছেন, এটাও তেমন ভাবেই করতে হবে। Settings>General>Keyboards-এর মধ্যে Add Keyboards অপশনে যান। সেখানে বাংলা কিবোর্ডটা ইন্সটল করে নিন। ফলে বাড়তি অ্যাপ ছাড়াই বাংলা লিখতে পারবেন। কিবোর্ডের নীচে গ্লোবের মতো দেখতে যে আইকন আছে, সেটায় ট্যাপ করলে বাংলা কিবোর্ডটা পেয়ে যাবেন। আবার ট্যাপ করলে ফিরে যাবেন ইংরেজিতে।

অ্যানড্রয়েড

অ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের জন্যও অনেক বাংলা লেখার অ্যাপস পাওয়া যায়। প্লে স্টোরে এমন অনেক অ্যাপ পেয়ে যাবেন বিনাপয়সায়। তবে এক্ষেত্রেও বাংলা রিজিওনাল কিবোর্ড ইন্সটল করে নেওয়াই ভাল। স্মার্টফোনের কোম্পানির হেরফেরে সেটিংসের অপশনে বদল হয়। তবে মোটামুটি সব ক্ষেত্রেই বাংলা কিবোর্ডের অপশন পেয়ে যাবেন সেটিংসের মধ্যে।

গ্রাফিক্স: পার্থ খান।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE