• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘পদ্মাবত’-এর আলাউদ্দিনের সঙ্গে আজম খানের মিল আছে: জয়াপ্রদা

Jaya Prada, Azam Khan
জয়া প্রদা এবং আজম খান।

আলাউদ্দিন খিলজির সঙ্গে নাকি আজম খানের বিস্তর মিল! সম্প্রতি এমনই মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী তথা উত্তরপ্রদেশের রামপুরের প্রাক্তন সাংসদ জয়াপ্রদা।

শনিবার সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জয়া জানিয়েছেন, সঞ্জয় লীলা ভন্সালীর ‘পদ্মাবত’ ছবিতে খল চরিত্র আলাউদ্দিন খিলজি তাঁকে সমাজবাদী পার্টি (সপা) নেতা আজম খানকে মনে করিয়ে দিয়েছে। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সময় আজম খান তাঁকে ‘হেনস্থা’ করেছিলেন বলেও অভিযোগ করেন অভিনেত্রী।

সঞ্জয় লীলা ভন্সালীর ‘পদ্মাবত’-এ দুশ্চরিত্র, যুদ্ধপরায়ণ এবং কূট রাজনীতিকের চরিত্রে বাজিমাত করেছেন খিলজি রূপী রণবীর সিংহ। গোটা ছবি জুড়ে যাঁর বডি ল্যাঙ্গুয়েজে ছিল শুধুই হিমশীতল হিংস্রতা। এ হেন ভয়ঙ্কর চরিত্রের সঙ্গে আজম খানের মিল টেনে এনে স্বভাবতই খবরের শিরোনামে চলে এসেছেন জয়া।

শনিবার এএনআইকে জয়া বলেছেন, ‘‘পদ্মাবত ছবিতে আলাউদ্দিন খিলজিকে দেখতে দেখতে আমার আজম খানের কথাই মনে পড়ে যাচ্ছিল। ভোটে লড়ার সময় আজম খান আমাকে নানা ভাবে অপদস্থ করেছিলেন।’’

আরও পড়ুন, কাচের সিলিং ভাঙছে, দেখাল অস্কারের মঞ্চ

সপা নেতা আজম খানের বিরুদ্ধে এর আগেও বহুবার মুখ খুলেছেন জয়া। ২০০৯ সালে লোকসভা নির্বাচনের সময় জয়া অভিযোগ করেছিলেন, আজম খান তাঁর ভাবমূর্তিকে নষ্ট করতে কুরুচিকর পোস্টার এবং ভিডিও ছড়িয়ে দিয়েছেন। আজম খানকে ‘অহংকারী’ এবং ‘দুর্নীতিপরায়ণ’ বলে মন্তব্যও করেছিলেন নায়িকা।

আরও পড়ুন, বিরল রোগে আক্রান্ত, নিজেই জানালেন ইরফান

এন টি রামারাওয়ের হাত ধরে ১৯৯৪ সালে রূপোলি পর্দা থেকে রাজনীতির জগতে পা রাখেন জয়া। যোগ দেন তেলুগু দেশম পার্টিতে (টিডিপি)। পরে, ২০০৪ সালে টিডিপি ছেড়ে সমাজবাদী পার্টিতে যোগ দেন তিনি। এর পর উত্তরপ্রদেশের রামপুর থেকে সাংসদ নির্বাচিত হন। সপার ঘরোয়া রাজনীতির জেরে অমর সিংহ শিবিরে যেতেই আজম খানের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয় জয়াপ্রদার। ২০১০ সালে সমাজবাদী পার্টি থেকে বহিষ্কার করা হলে জয়া রাষ্ট্রীয় লোক দল (আরএলডি)-তে যোগ দেন।

এএনআইকে জয়া বলেছেন:

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন