গোলাপি সালোয়ার-কামিজ আর সবুজ ওড়না। নায়িকাকে এই পোশাক পরিয়েই কিছুটা শ্যুটিং হয়ে গিয়েছিল গানের। কিন্তু নায়িকার মন খুঁতখুঁত করছিল— পোশাকটা ঠিক যেন মানাচ্ছে না তাঁকে। শট শেষ হলে সে কথা বলেন পরিচালককে। নায়িকার পরামর্শেই আসে নতুন পোশাক। ফের শ্যুটিং। ছবির মুক্তির পরে দুরন্ত হিট হল সেই গান— ‘চুরা লিয়া...’। আর পর্দা জুড়ে সাদা জাম্পস্যুট পরা জিনত আমন।

‘ইয়াদোঁ কি বরাত’ ছবির শ্যুটিংয়ের সময়ের এই মজাদার গল্প শুধু নয়, সিনেমা জীবনের এমন হরেক কিসিমের গল্প শোনালেন জিনত। হংকং-এ ‘ইন্ডিয়া বাই দ্য বে’ অনুষ্ঠানে এক ভি়ড়েঠাসা প্রেক্ষাগৃহে। চলে গেলেন কেরিয়ারের সেই প্রথম যুগে। ‘মিস ইন্ডিয়া প্যাসিফিক’ খেতাব জিতে সবে মডেলিং শুরু করেছেন। এমন সময়ে এক ফটোগ্রাফার জানালেন, দেব আনন্দের নতুন ছবির জন্য অভিনেত্রী খোঁজা হচ্ছে। ‘‘দশ দিন বাদে ফোন পেলাম, ‘আপনার হাসিটা খুব সুন্দর। চোখগুলোও।’  রোলটা পেয়ে গেলাম। ‘হরে রাম হরে কৃষ্ণ’ আমার জীবন পাল্টে দিল!’’ বললেন জিনত।

জিনতের কথায়, ‘‘তখনকার দিনে নায়িকারা সব শাড়ি, সালোয়ার কামিজ পরা ‘ভাল মেয়ে’ হতেন। খলনায়িকারা ছোটছোট জামাকাপড় পরে সিগারেট ফুঁকতেন, মদ খেতেন।’’ কিন্তু জিনত নিজে সেই ধারাটা থেকে অনেকটাই আলাদা। ‘‘হ্যাঁ, তাই মনে হয় অন্য ধরনের চরিত্রও পেতাম। বুট পরার, গাঁজার কল্কে টানার সুযোগ পেতাম,’’ হেসে উঠলেন জিনত।

আরও পড়ুন: হার্ভির বিরুদ্ধে উমা-ও

ততদিনে ‘শহুরে’, ‘পশ্চিম-ঘেঁষা’, ‘হিপি’, এমন নানা লেবেল সেঁটে গিয়েছে জিনতের গায়ে। তা হলে রাজ কপূরের ‘সত্যম শিবম সুন্দরম’ ছবিতে এক গ্রাম্য মহিলার চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেলেন কী করে? ‘‘সে এক মজার ঘটনা,’’ বলতে শুরু করলেন জিনত। ‘‘রাজ কপূরের ছবিতে অভিনয় করার খুব ইচ্ছে ছিল। তখন আমার একটা সিনেমার শ্যুটিং চলছে। ঘাগরা-চোলি পরে আছি আমি। শুনলাম আরকে স্টুডিওতে রাজ কপূর রয়েছেন। মেক আপ আর্টিস্টকে দিয়ে একটা বিনুনি করে নিয়ে সটান রাজ কপূরের কাছে। বললাম, ‘রাজসাবকে বলুন, রূপা (সত্যম শিবমের চরিত্র) এসেছে।’ রাজ কপূর আমায় দেখে স্ত্রী কৃষ্ণাদেবীকে ডেকে পাঠালেন। ব্যস!’’

আর নায়করা? ‘‘আমি আসলে কখনওই কোনও বিশেষ নায়কের নায়িকা হয়ে উঠিনি। পরিচালকের নায়িকাই ছিলাম। তবে বড় বড় অভিনেতাদের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখেছি। অসম্ভব সময়নিষ্ঠ ছিলেন মিস্টার বচ্চন। আর ভদ্রতা কাকে বলে, তা শশী কপূরের কাছ থেকে শিখতে হয়।’’

আর পরভিন বাবির সঙ্গে তাঁর টক্কর? ‘‘ওটা সংবাদমাধ্যমের তৈরি করা গসিপ,’’ দাবি জিনতের। নিজের ব্যক্তিগত জীবন ও নানা সম্পর্ক নিয়ে তাঁর মন্তব্য, ‘‘জীবনে ভাল ভাল সুযোগ পেয়েছি, আর একগাদা খারাপ সম্পর্ক!’’

হলিউডে যৌন হেনস্থা নিয়ে #মিটু প্রচার সম্পর্কে জিনতের মন্তব্য, ‘‘যে কোনও হেনস্থার বিরুদ্ধে সব সময়েই সরব হওয়া উচিত। সেটা হলিউড হোক, বা বলিউড।’’ ব্যতিক্রমী নায়িকাকে অভিবাদন জানিয়ে হল ফেটে পড়ল হাততালিতে।