বিভেদের বিরুদ্ধে সরব শাহরুখ
নির্বাচনী মরসুমে শিল্পী-সাহিত্যিক-সাংস্কৃতিক কর্মীদের মধ্যে এখন প্রায় আড়াআড়ি বিভাজন। নাসিরুদ্দিন শাহ, অমল পালেকরের মতো প্রবীণ অভিনেতা, নাট্যব্যক্তিত্বরা সরাসরি বিদ্বেষের রাজনীতির বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন।
shahrukh

ভারত দেশটা নানা রঙের ছবির মতো। তার মধ্যে থেকে একটা রং সরিয়ে নিলে বা একটা রংকে অন্য রঙের থেকে ভাল বলে দাবি করলে, ছবিটা আর ছবি থাকে না— বললেন শাহরুখ খান। একটি নির্মীয়মাণ তথ্যচিত্রে ভারত সম্পর্কে তাঁর ধারণার কথা এ ভাবেই জানিয়েছেন তিনি। বহু ভাষা, বহু ধর্মের এই দেশে বৈচিত্রই সুন্দর, বিভেদ নয়, বলেছেন শাহরুখ।

নির্বাচনী মরসুমে শিল্পী-সাহিত্যিক-সাংস্কৃতিক কর্মীদের মধ্যে এখন প্রায় আড়াআড়ি বিভাজন। নাসিরুদ্দিন শাহ, অমল পালেকরের মতো প্রবীণ অভিনেতা, নাট্যব্যক্তিত্বরা সরাসরি বিদ্বেষের রাজনীতির বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন। চিত্রপরিচালকদের মধ্যেও অনেকেই সেই সুরে সুর মিলিয়েছেন। কিন্তু মূলধারার বলিউড তাতে কার্যত অনুপস্থিত। তবে সম্প্রতি বলিউড নিয়ে একটি তথ্যচিত্রের শুটিংয়ে শাহরুখ যা বলেছেন, সেটা টুইট করেছেন চিত্রপরিচালক ইয়াসমিন কিদওয়াই। শাহরুখের বক্তব্যে পরোক্ষ ভাবে মেরুকরণ, বিদ্বেষ এবং অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে বার্তা স্পষ্ট। এর আগে মোদী জমানার গোড়ার দিকেও শাহরুখ অসহিষ্ণুতা  নিয়ে মুখ খুলে প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন।

আজই শাহরুখ ভোটাধিকার প্রয়োগ করার ডাক দিয়ে একটি ভিডিয়ো প্রকাশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী নিজে এ ব্যাপারে বলিউডকে উদ্যোগী হতে অনুরোধ জানিয়েছিলেন। সে কথা উল্লেখ করে শাহরুখ টুইটে লিখেছেন, ‘‘পিএম সাহেব ‘ক্রিয়েটিভ’ হতে বলেছিলেন। আমার একটু দেরি হয়ে গেল। আপনারা কিন্তু ভোট দিতে দেরি করবেন না। ভোট শুধু কর্তব্য নয়, ভোট আপনার ক্ষমতা।’’ মোদী উত্তরে প্রশংসা করে লেখেন, ‘‘আমি নিশ্চিত মানুষ আপনার কথা শুনবে এবং ভোট দিতে এগিয়ে আসবে।’’

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত