মহালয়া। বঙ্গ জীবনের নস্ট্যালজিয়ার আর এক নাম। রেডিয়োকে আদরের দিন। সেই জিয়া নস্টাল শরতের ভোরের ঘুম ভাঙে বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের কণ্ঠে। শিরশিরে হাওয়ায় দেবী বন্দনা শুনতে শুনতেই ঢাকের বাদ্যির অনুভব পায় বাঙালি।

ব্যতিক্রম হয়েছিল একবারই। ১৯৭৬। সে বছর বীরেন্দ্রকৃষ্ণের বদলে মহানায়ক উত্তমকুমারের কণ্ঠ শুনেছিল বাঙালি। কিন্তু প্রাণের নায়ককেও এই জায়গায় রেয়াত করেননি কেউ। রেডিয়োর মহালয়া যে তাঁর মাঠ নয়, তা বুঝিয়ে দিয়েছিলেন শ্রোতারা। সেই মাঠে যে মানুষটি প্রত্যেক বছর ছক্কা হাঁকাতে অভ্যস্ত তাঁর নাম বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র।

ঠিক এই বিষয় নিয়েই ছবি তৈরি করেছেন সৌমিক সেন। প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায় নিবেদিত সে ছবি প্রথম লুক পোস্টার মুক্তি পেল শুক্রবার।

আরও পড়ুন, পরকীয়া মানেই গুজগুজ নয়, সম্মানেরও হতে পারে, বললেন কৌশিক

এই ছবিতে বীরেন্দ্রকৃষ্ণের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন শুভাশিস মুখোপাধ্যায়। উত্তমকুমারের ভূমিকায় দেখা যাবে যিশু সেনগুপ্তকে। যিশুর কেরিয়ারে এ ছবি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ। প্রথম পোস্টারে তৈরি হয়েছে সংবাদপত্রের পাতার আদলে। ‘বীরেন্দ্রকৃষ্ণের বদলে উত্তম, উত্তাল বাংলা’ শিরোনামে রয়েছে খবরও। পোস্টার দেখার পরই এ ছবি বাঙালির আবেগের সঙ্গে জড়িয়ে যাবে বলে মনে করছেন ইন্ডাস্ট্রির একটা বড় অংশ।

(কোন সিনেমা বক্স অফিস মাত করল, কোন ছবি মুখ থুবড়ে পড়ল - বক্স অফিসের সব খবর জানতে পড়ুন আমাদের বিনোদন বিভাগ।)