নওয়াজ়ই বলছেন। কিন্তু, যখন বলছেন, তখন আর তিনি নওয়াজ় নন। সাদাত হাসান মান্টো।

সাদাত হাসান মান্টোর বায়োপিক নিয়ে নওয়াজ় ভক্তদের মধ্যে ছিল চূড়ান্ত উন্মাদনা। যখন থেকে ‘মান্টো’রূপী নওয়াজের একটা ঝলক সামনে এসেছিল, উত্তেজনা ছিল ঠিক তখন থেকেই। অবশেষে সামনে এল ‘মান্টো’র ট্রেলার।

মান্টো আওয়াজ তুললেন ট্রেলারের প্রথমেই। কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে বিচারপতির দিকে প্রশ্ন ছুড়ে দিলেন ‘‘সত্যিটাকে সত্যি হিসেবে মানতে আমাদের আপত্তিটা কোথায়? আমার গল্পগুলোকে আমি এই সমাজের আয়না মনে করি, যেখানে সমাজ নিজের মুখটাকেও দেখে নিতে পারে।’’

বন্ধুদের সঙ্গে টেবিলে বসে আড্ডা। আর সেই টেবিলেও হট টপিক। সেখানেও ‘মান্টো’র কথা ‘‘আমার গল্প যদি আপনার সহ্য না হয়, তা হলে বলে রাখি, সময় এখনও তৈরি হয়নি।’’ সর্বক্ষণ চলে যাচ্ছে তাঁর কলম। তবে সেই খাতা আর  পেনের পাশাপাশি মদের বোতল বা গ্লাসে কিন্তু চোখ আটকাবেই।

দেখুন ভিডিয়ো

 

আর তার পরেই দেশ স্বাধীন। মান্টোর ছেলের জন্ম। ‘‘তুমি স্বাধীন দেশে জন্মগ্রহণ করেছ।’’ খুশির চোটে ছেলেকে মান্টোর আদর। কিন্তু সে খুশি তো ক্ষণস্থায়ী। আর তার কারণ দেশভাগ। তখন আর এক বিপদ এসে হাজির মান্টোর সামনে। ‘‘পরাধীন থাকার সময় আজাদির স্বপ্ন দেখতাম। আর এখন কিসের স্বপ্ন দেখব?’’ আবার প্রশ্ন ঘোরাফেরা করে মান্টোর মগজে।

আর তার পরই কঠিন আর্থিক অনটনের সঙ্গে দেখা মান্টোর। খাওয়ার টেবিলে স্ত্রী সফিয়ার সঙ্গে বাদানুবাদ। পুলিশের ঠক ঠক মান্টোর দরজায়। কারণ, তার লেখা ‘ঠান্ডা গোস্ত’ নিয়ে সরকারের চূড়ান্ত আপত্তি।

আরও পড়ুন: জানেন ‘পদ্মাবত’-এর রতন সিংহ হতে প্রভাস কেন রাজি হননি?

আরও পড়ুন: ‘সরি’ কে? হাসিন নাকি তাঁর পুরুষ সঙ্গী?

টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব, কান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব এবং আরও বেশ কিছু চলচ্চিত্র উৎসবেও দেখানো হয়েছিল নন্দিতা দাস পরিচালিত এই ছবি। ছবিতে নাম ভূমিকায় রয়েছেন নওয়াজ়উদ্দিন সিদ্দিকি। রয়েছেন ঋষি কপূর, রসিকা দুগল, জাভেদ আখতার, দিব্যা দত্ত, পরেশ রাওয়াল, চন্দন রায় সান্যাল এবং আরও অনেকেই। চলতি বছরের ২১ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাওয়ার কথা এই ছবির।  

মুভি ট্রেলার থেকে টাটকা মুভি রিভিউ - রুপোলি পর্দার সব খবর জানতে পড়ুন আমাদের বিনোদন বিভাগ।