×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

ত্রিকোণ সম্পর্ক কি নতুন মোচড় আনবে ‘শ্রীময়ী’-তে?

মৌসুমী বিলকিস
কলকাতা ৩০ অক্টোবর ২০১৯ ১৭:১১
‘শ্রীময়ী’র একটি দৃশ্যে ইন্দ্রাণী-উষসী-সুদীপ

‘শ্রীময়ী’র একটি দৃশ্যে ইন্দ্রাণী-উষসী-সুদীপ

‘শ্রীময়ী’ ধারাবাহিকের কেন্দ্রীয় চরিত্র শ্রীময়ী। তার স্বামী অনিন্দ্য। অনিন্দ্যর পছন্দের নারী জুন। এই ত্রিকোণ সম্পর্ক নিয়ে চলছে ধারাবাহিকের মূল গল্প। এই মুহূর্তে ঠিক কী দেখছেন দর্শক? ত্রিকোণ সম্পর্কের সমীকরণ কী ভাবেই বা নিচ্ছেন তাঁরা?

শ্রীময়ীর চরিত্রাভিনেতা ইন্দ্রাণী হালদার গল্পটা বললেন, “শ্রীময়ীর স্বামী জুনের সঙ্গে ইনভলভড। স্বামীর সঙ্গে তার দূরত্ব তৈরি হয়েছে। সংসারটা স্বামীই দেখাশোনা করে। শ্রীময়ী যদি এখন খুব রেবেল হয়ে যায় তো সংসারটা ভেসে যাবে। সংসারের খাতিরে, নিজের সন্তানদের খাতিরে শ্রীময়ী স্বামীর সম্পর্কটা মেনেও নিচ্ছে। তা ছাড়া শ্রীময়ী অত্যন্ত সাধারণ একটি মেয়ে, সাধারণ মেয়ের কতকগুলো সুবিধা-অসুবিধা তো আছে। সেই রকম সমস্যায় শ্রীময়ী আপাতত ভীষণ ভাবে জর্জরিত। স্বামী শ্রীময়ীকেও ভুলতে পারছে না, গার্লফ্রেন্ডকেও ভুলতে পারছে না... টানাপড়েনের মধ্যে পড়ে আছে। একটা অদ্ভুত সঙ্কটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এই তিনটি চরিত্র... জুন, শ্রীময়ী এবং অনিন্দ্য।”

জুন চরিত্রে ঊষসী চক্রবর্তী শেয়ার করলেন, “অনেক দর্শক আমার ওপর রেগে যাচ্ছেন। কারণ আই অ্যাম মেকিং সাম ইমপ্যাক্ট। অনেকেই আমার বাড়ির কাজের লোককে বলেছেন যে, ‘তোর দিদি তো লোকের সংসার ভাঙে।’ যারা আমাকে প্রথম দেখছেন, তাঁরা বলছেন, ‘ওমা! আপনার স্বভাব-ব্যবহার তো খুব ভাল। কিন্তু সিরিয়ালে দেখে আপনাকে ভেবেছিলাম খুবই ঝগড়ুটে এবং আপনি লোকের সংসার ভাঙেন।’’

Advertisement



‘শ্রীময়ী’র শুটিংয়ে ব্যস্ত সুদীপ-ইন্দ্রাণী

এ সব শুনে কেমন লাগে? ঊষসী বললেন, “খুবই ভাল লাগে। সেই যে গিরিশ ঘোষকে চটি ছুড়েছিলেন বিদ্যাসাগর এবং গিরিশ ঘোষ বলেছিলেন, ‘এটাই আমার সেরা পুরষ্কার।’ (‘নীল দর্পণ’ অভিনয় কালে।) লোকে সত্যিই ভাবতে পারছে না বাস্তবে আমি সংসার ভাঙিনি কারও... এইটা আমার কাছে খুব বড় ব্যাপার।”

অনিন্দ্যর চরিত্রে সুদীপ মুখোপাধ্যায়ের কথায়: “এই মুহূর্তে অনিন্দ্য অসুস্থ। অসুস্থ হয়ে সে বাড়িতে এসেছে। শ্রীময়ী ওর জীবনের অভ্যেস। পঁচিশ বছর ধরে দু’জনে একসঙ্গে আছে। সে বলছেও, ‘তুমি ছাড়া এই বাড়িটা ইম্পসিবল। আমি ভাবতেই পারি না।’ অনিন্দ্য বলছে, ‘আমি জুনকেও ভালবাসি, তোমাকেও ভীষণ ভালবাসি।’ ওর ফিলিংটা এ রকম, অদ্ভুত একটা কমপ্লিকেশন।”

ঊষসী যোগ করলেন, “জুনের সাইকোলজিক্যাল, ইমোশনাল ক্রাইসিসের সঙ্গে কোথাও একটা রিলেট করতে পারি। ফলে চরিত্রটা বুঝতেও সুবিধা হয়। তার ফলে চরিত্রটার সঙ্গে দর্শকও কানেক্ট করতে পারেন।”

হয়তো শিগগির এই ত্রিকোণ সম্পর্ক গল্পে আনবে নতুন মোচড়।

আরও পড়ুন:ওয়েব প্ল্যাটফর্মের স্বাদ বদলে দিল রসনা-ছবি
আরও পড়ুন:দীপাবলি উদযাপন করে কট্টরদের রোষের মুখে শাহরুখ, পাশে দাঁড়ালেন শাবানা
Advertisement