×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

অনির্বাণ-মধুরিমার বিয়েতে টলি সেলেবদের চাঁদের হাট, দেখুন ফোটো অ্যালবাম

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৮ নভেম্বর ২০২০ ১৬:২০
‘হাতিবাগান সংঘারাম’। সেই নাট্যদলেই যুগলের আলাপ। বিখ্যাত মাইম শিল্পী নিরঞ্জন গোস্বামীর কন্যা মধুরিমা। নিজেও প্রতিষ্ঠিত নাট্যকর্মী।

আর অনির্বাণ ভট্টাচার্য? নাট্য দুনিয়া থেকে বড় পর্দা। যেখানেই পা রেখেছেন ছয়ের পর ছয় মেরেছেন। তাঁর বান্ধবী, তাঁর সম্পর্ক, বিয়ে, ইত্যাদি নিয়ে বহু দিন ধরেই দর্শকমহলে তুমুল কৌতুহল ছিল।
Advertisement
অনির্বাণের সঙ্গে কখনও সোহিনী সরকার, কখনও তূর্ণা দাসের নাম জড়িয়ে জলঘোলা হয়েছিল অনেক। বছর খানেক আগে মধুরিমা গোস্বামীকে নিয়ে জল্পনা শুরু হয়।

কিন্তু ব্যক্তিগত পরিসরে কাউকে প্রবেশাধিকার দেননি অনির্বাণ ও মধুরিমা। আচমকাই তাঁদের বিয়ের খবর পেয়ে হুলুস্থুল পড়ে যায় নেটদুনিয়ায়।
Advertisement
গত বৃহস্পতিবার সন্ধেবেলা সল্টলেকের ন্যাশনাল মাইম ইনস্টিটিউটে বিয়ে করেন এই যুগল। বিশিষ্টদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নাট্য ব্যক্তিত্ব ব্রাত্য বসু, জয়রাজ ভট্টাচার্য প্রমুখ। আর শুক্রবার সেখানেই আরেক দফা উৎসব চলল। ছিলেন টলি পাড়ার তারকারা। কাঞ্চন মল্লিক, সৃজিত প্রমুখ।

‘বিবাহিত অনির্বাণ’। এই দুই শব্দ শুনেই বিরহে কাতর নায়কের বহু অনুরাগী। অনেকেই আবার শুভেচ্ছাবার্তা জানিয়েছেন।

কিন্তু সবকিছুর মধ্যেও ট্রোলিং তাঁদের পিছু ছাড়েনি। কটূক্তি করার জন্য যেন মুখিয়ে ছিল নেটাগরিকরা। তাঁদের বিয়ের ছবি ও ভিডিয়ো শেয়ার করে কেউ প্রশ্ন তুললেন মধুরিমার সিঁদুর পরার ধরন নিয়ে। কেউ আবার রেগে গিয়ে ‘মালাবদল ও সিঁদুর পরানোর মতো রীতি মানা হল কেন!’ বলে শোরগোল ফেললেন।

কারও আবার মধুরিমার মুখভঙ্গী পছন্দ হয়নি। বাদ যায়নি বডি শেমিংও।

সে সব কটূক্তিকে ফুৎকারে উড়িয়ে দিয়ে শুক্রবার নিজেদের রিসেপশনে বড়ই খোশমেজাজে ছিলেন তাঁরা। সেই প্রমাণ ঘুরে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার আনাচে কানাচে।

ন্যাশনাল মাইম ইনস্টিটিউটেই রিসেপশনের অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হয়েছিল। অনির্বাণের নাট্যদলের সদস্যরা নবদম্পতির জন্য একটি ছোট্ট নৃত্যনাট্যের ব্যবস্থা করেছিলেন। যুগলের অগোচরেই বন্দোবস্ত চলেছিল।

সহকর্মীদের পারফরম্যান্স-উপহারে খুব খুশি নবদম্পতি। অনুষ্ঠানে তারকার সমাবেশ তো ছিলই। কিন্তু তাঁদের মাঝেও নবদম্পতির হাসিমুখ আর সাজগোজ যেন সবকিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছিল।

সাদা পাঞ্জাবি-চোস্ত এবং বেগুনি-নীল মেশা রঙের উত্তরীয়তে অনির্বাণ। ধুসর আর হলুদ মেশানো ডিজাইনার শাড়ি ও হলুদ ব্লাউজে মধুরিমা।

উপস্থিত ছিলেন গায়ক অনুপম রায়, তাঁর স্ত্রী পিয়া চক্রবর্তী, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী ইকা। শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত থাকায় পরমব্রত অনুষ্ঠানে থাকতে পারেননি। ইকার সাজগোজে লালের ছোঁয়া। পিয়ার লাল রঙের ব্লাউজের সঙ্গে হালকা সোনালি শাড়ি বেশ মানিয়েছে। অন্য দিকে অনুপম বেছে নিয়েছিলেন কালো রংকেই।

এ ছাড়াও ছিলেন অভিনেত্রী সোহিনী সরকার ও অভিনেতা রণজয়। দু’জনেই পরেছিলেন কালো রঙের পোশাক। ছবিটি পোস্ট করে সোহিনী লিখেছেন, ‘বিবাহ অভিযান’।

পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়, তাঁর স্ত্রী মিথিলা সঙ্গে নবদম্পতির এই ছবির জন্য যেন মুখিয়ে ছিলেন নেটাগরিকেরা। অনির্বাণের বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আসতেই মিথিলা মজা করে পোস্ট করেছিলেন, ‘সৃজিত বড়ই দুঃখ পেয়েছেন এই খবরে’। তাই নিয়ে হাসির রোল উঠেছিল নেট দুনিয়ায়।

অনির্বাণ ও মধুরিমার সঙ্গে ছবি তুলে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছে‌ন অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষও। লিখেছেন, ‘অনির্বাণ-মধুর বিয়ের আড্ডায়’।