Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Saurav Das: স্কার্ট পরে পুরুষরাও যে রাস্তায় বেরোতে পারেন, সেটা বোঝাতেই ছবি দিয়েছি: সৌরভ

ইনস্টাগ্রামে একটি লম্বা ঝুলের স্কার্ট এবং ব্লেজার পরে ছবি দিয়েছেন অভিনেতা। সঙ্গে লিখেছেন, ‘ভালবাসা এবং রামধনুর মতো পোশাকেরও কোনও লিঙ্গ হয় না

১৭ জুন ২০২১ ১৭:৫৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
সৌরভ দাস।

সৌরভ দাস।

Popup Close

পর্দায় সমকামী চরিত্রে অভিনয় করেছেন আগেই। লিঙ্গভেদহীন ভালবাসার মাস উদযাপন করতে আরও এক ধাপ এগিয়ে এলেন অভিনেতা সৌরভ দাস। বৃহস্পতিবার ইনস্টাগ্রামে একটি লম্বা ঝুলের স্কার্ট এবং ব্লেজার পরে ছবি দিয়েছেন তিনি। সঙ্গে লিখেছেন, ‘ভালবাসা এবং রামধনুর মতো পোশাকেরও কোনও লিঙ্গ হয় না।’

সৌরভ মনে করেন, এ ধরনের পোশাক পরতে ভালবাসেন অনেক পুরুষ। কিন্তু নানা কটাক্ষ, বঞ্চনার ভয়ে অনেক সময় সেই ইচ্ছা দমিয়ে রাখেন তাঁরা। তাই তাঁদের পাশে দাঁড়াতে ডিজাইনার বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলে এই ফোটোশ্যুট করেছিলেন সৌরভ। কিন্তু অভিনেতা এই ছবি পোস্ট করতে না করতেই মন্তব্য বাক্স ভরে গেল ট্রোল আর কটাক্ষে। নেটাগরিকদের একাংশ ‘গরীবের রণবীর সিংহ’ আখ্যা দিয়ে দিলেন এই মুহূর্তে ওয়েব সিরিজের দুনিয়ায় আধিপত্য বিস্তার করা সৌরভকে। নেটমাধ্যমে এ ধরনের নেতিবাচকতার মুখোমুখি আগেও হয়েছেন সৌরভ। তাঁর কথায়, “জিম সর্ভ, হ্যারি স্টাইলস এ ধরনের জামাকাপড় পরলে বাঙালি লাফিয়ে ওঠে। রণবীর সিংহ তো এই ধরনের জামাকাপড় পরেই থাকেন। আমার এ সব ট্রোলিং গা সওয়া হয়ে গিয়েছে। বরং কেউ ট্রোল না করলেই যেন কেমন লাগে।”

Advertisement
সৌরভ মনে করেন, পোশাকের কোনও লিঙ্গ হয় না।

সৌরভ মনে করেন, পোশাকের কোনও লিঙ্গ হয় না।


নেটমাধ্যমে ট্রোলিং নিয়ে ভাবিত নন সৌরভ। কিন্তু সে সব ট্রোলিংয়ে প্রতিফলিত মানসিকতায় হতাশ অভিনেতা। ‘গরিবের রণবীর সিংহ’ তকমাকে বাঙালির হীনমন্যতার ফল মনে করেন তিনি। সৌরভের কথায়, “গরিবের রণবীর সিংহ বলা হল কেন আমাকে? বাংলার রণবীর সিংহও বলতে পারত। তা হলে বাঙালি কি নিজেকে গরিব ভাবে? বাঙালি ধরেই নিয়েছে বাইরের জিনিস সব সময় ভাল হবে। কিন্তু আমি মনে করি সংস্কৃতিগত ভাবে বাঙালির চেয়ে ধনী আর কেউ হয় না।”

সৌরভ জানিয়েছেন, ইনস্টাগ্রামে তাঁর ২ লক্ষ অনুগামীর মধ্যে তরুণ প্রজন্মের নেটাগরিকের সংখ্যাই বেশি। এই পরিসংখ্যান পাওয়ার পর দায়িত্ববোধ বেড়েছে অভিনেতার। সমাজে বিভিন্ন বিষয়ে তাঁদের সচেতন করাকে নিজের কর্তব্যের আওতায় এনেছেন তিনি। তাঁর কথায়, “আমার এ রকম ছবি দেখে ওদের প্রথম প্রথম খারাপ লাগলেও পরে ওরা এটা মেনে নেবে। বুঝতে শিখবে যে স্কার্ট পরে একজন পুরুষও রাস্তায় বেরোতে পারেন।”

সব ধরনের পোশাক পরতেই ভালবাসেন সৌরভ দাস।

সব ধরনের পোশাক পরতেই ভালবাসেন সৌরভ দাস।


পোশাকের লিঙ্গ হয় না, স্কার্ট পরে এ কথা প্রমাণ করতে চেয়েছেন সৌরভ। কিন্তু ট্রোল আর কুকথারও যে নির্দিষ্ট কোনও উপলক্ষ লাগে না, অভিনেতার স্কার্ট পরা ছবি নিয়ে নানা মন্তব্যই তার প্রমাণ। এই প্রসঙ্গে হাসতে হাসতে সৌরভ বললেন, “মা বলে একটা জলের কলকে যত জোর দিয়ে আটকাব, সেটা কেটে গিয়ে তত বেশি জল বেরিয়ে যাবে। ট্রোলিংও খানিক সে রকমই। আটকানোর চেষ্টা করলে, বেড়ে যাবে।”

সব কটাক্ষকে উড়িয়ে সৌরভের আক্ষেপ, “নাকের নথটা পেলাম না। অনিন্দিতা ওটা নিয়ে মুম্বই চলে গিয়েছে। না হলে ওটাও পরে নিতাম।”



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement