Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

কমল হাসনের ছোট মেয়ের সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন, নাসিরপুত্র ভিভান এখনও ব্যর্থ স্টারকিডদের তালিকাতেই

নিজস্ব প্রতিবেদন
১৩ নভেম্বর ২০২০ ১৪:৫৭
মাত্র ২১ বছর বয়সে প্রথম ছবিতে অভিনয় প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার বিপরীতে। সূত্রপাত দেখে দর্শকদের আশা ছিল, বাবা-মায়ের অভিনয়ধারার যোগ্য উত্তরাধিকারী হবেন তিনি। কিন্তু নাসিরপুত্র ভিভান শাহ এখনও ব্যর্থ স্টারকিডদের তালিকাতেই রয়ে গিয়েছেন।

নাসিরুদ্দিন শাহ এবং রত্না পাঠকের ছোট ছেলে ভিভানের জন্ম ১৯৯০ সালের ১১ জানুয়ারি। দুন স্কুল, সেন্ট স্টিফেন্স কলেজ এবং জয় হিন্দ কলেজের প্রাক্তন ছাত্র ভিভানের বলিউডে আত্মপ্রকাশ ২০১১ সালে। অভিনয় করেন বিশাল ভরদ্বাজের ‘সাত খুন মাফ’ ছবিতে।
Advertisement
প্রথম ছবিতে ভিভানের অভিনীত অরুণ কুমরারে চরিত্রটির মধ্যে ধরা পড়ে একটি বিস্তীর্ণ সময়কাল। ছবি জুড়ে কিশোর থেকে মাঝবয়সি হয় অরুণ। চিত্রনাট্য অনুযায়ী পাল্টে গিয়েছিল ভিভানের অভিনয়ের শেডও।

তারকাখচিত ‘সাত খুন মাফ’-এ প্রশংসিত হয়েছিল ভিভানের অভিনয়। কিন্তু তার পরেও তাঁর কাছে যে অনেক সুযোগ এসেছিল, তা অবশ্য নয়।
Advertisement
আরও ৩ বছর পরে ভিভান অভিনয় করেন দ্বিতীয় ছবি ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’-এ। শাহরুখ খানের এই ছবিতে বরং অনেকটাই নজরে এসেছিলেন তিনি।

তবে পরবর্তী ছবি ‘বম্বে ভেলভেট’ মুখ থুবড়ে পড়েছিল বক্স অফিসে। একই পরিণতি হয়েছিল ‘লালি কি শাদি মেঁ লাড্ডু দিওয়ানা’ ছবিরও।

চলতি বছরে ভিভান অভিনয় করেছেন ‘কোট’ ছবিতে। এই ছবিতে তাঁকে দেখা যাবে দলিত বালকের ভূমিকায়। যাঁর সারা জীবনের স্বপ্ন একটা কোট পরার। তাঁর ইচ্ছে কি পূর্ণ হবে? তাই নিয়েই আবর্তিত হয় চিত্রনাট্য।

ছবির পাশাপাশি ভিভান অভিনয় করেন থিয়েটারেও। টেলিভিশন সিরিজ ‘এ স্যুটেবল বয়’-এও তিনি কাজ করেছেন।

অভিনয়ের পাশাপাশি ভিভান ভালবাসেন শিল্পসামগ্রী সংগ্রহ করতে। জানিয়েছেন, অভিনেতা না হলে হয়তো ইতিহাসবিদ হতেন। পছন্দ করেন নানা ধরনের সিনেমা দেখতেও। ভারতীয় বিনোদন দুনিয়ার তাঁর সবথেকে ভাল লাগে বোমান ইরানিকে।

অবসরে হাতে তুলে নেন গল্পের বইও। জোসেফ কনরাড এবং সমারসেট মমের একনিষ্ঠ পাঠক ভিভান পরিবারের সঙ্গে লম্বা ছুটি কাটাতে ভালবাসেন শ্রীলঙ্কা এবং মেক্সিকোতে।

পরিবারের মধ্যে ভিভান সবথেকে ঘনিষ্ঠ তাঁর দাদা ইমাদের সঙ্গে। দাদাকেই নিজের ঘনিষ্ঠতম বন্ধু বলে মনে করেন ভিভান।

মা, অভিনেত্রী রত্না পাঠকের জীবনদর্শনও ভিভানের হৃদয়ের খুব কাছের। তাঁর কথায়, মা গাঁধীবাদী দর্শন অনুসরণ করেন। তাঁর নিজের জীবনেও সেই দর্শনের ছাপ আছে বলে জানিয়েছেন ভিভান।

বাবা নাসিরুদ্দিন শাহের কাছ থেকে ভিভান শিখেছেন অভিনয়ের স্টাইল। পর্দায় বাবার ম্যানারিজম অনুসরণ করার চেষ্টা করেন। জানিয়েছেন নাসিরপুত্র ভিভান। তবে সামগ্রিক ভাবে শিল্পকে সহজে নিজের মতো করে বুঝতে পারার পাঠও তিনি নেন বাবার কাছেই।

বাবা মায়ের কাছেই অভিনয়ের হাতেখড়ি করা ভিভান কোনও দিন অভিনয়ের প্রথাগত তালিম নেননি। তাঁর স্বপ্ন, ভবিষ্যতে ক্যামেরার পিছনে থেকে ছবি পরিচালনা করা। নায়ক বা অভিনেতা, কোনও কিছুই হওয়ার ইচ্ছে তাঁর বিশেষ নেই।

নাসিরুদ্দিনের প্রথম বিয়েয় সন্তান হীবাও থাকেন তাঁদের সঙ্গে একই পরিবারে। হীবার সঙ্গেও ইমাদ এবং ভিভানের সম্পর্ক ভাল।

ইন্ডাস্ট্রিতে কয়েকটি মাত্র ছবির অংশ হলেও ইতিমধ্যেই ভিভানের নামের সঙ্গে অক্ষরাকে জড়িয়ে গুঞ্জন উঠেছে। কমল হাসন এবং সারিকার ছোট মেয়ে অক্ষরার সঙ্গে ভিভান অভিনয় করেছিলেন ‘লালি কি শাদি মেঁ লাড্ডু দিওয়ানা’ ছবিতে।

তবে সব গুঞ্জন অস্বীকার করে ভিভানের দাবি, অক্ষরা তাঁর শৈশবের বন্ধু। তাঁদের দু’জনের অন্তরঙ্গ সম্পর্কের মধ্যে কোনও প্রেমসুলভ লুকোচুরি নেই।

বলিউডে স্বজনপোষণ আছে, সে কথা নির্দ্বিধায় স্বীকার করেছেন ভিভান। নবাগতদের তুলনায় স্টারকিডরা সহজে সুযোগ পান, জানিয়েছেন সে কথাও। তবে শুধু বলিউড নয়, সব কাজের ক্ষেত্রেই স্বজনপোষণ আছে বলে দাবি নাসিরুদ্দিন ও রত্না শাহের পুত্র ভিভানের।