Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০১ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Osteoporosis Problem: মহিলাদের মধ্যে অস্টিওপোরোসিসের সমস্যা কমাতে জীবনধারায় কতটা বদল প্রয়োজন

বিশ্বে বয়সজনিত কারণে হাড়ে যে সমস্যাগুলি দেখা দেয় তার মধ্যে অস্টিওপোরোসিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাই বেশি থাকে।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২২ মার্চ ২০২২ ১৫:০৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের শরীরে হাড়ের নানা সমস্যা দেখা দেয়।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের শরীরে হাড়ের নানা সমস্যা দেখা দেয়।
প্রতীকী ছবি।

Popup Close

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের শরীরে হাড়ের নানা সমস্যা দেখা দেয়। দেখা গিয়েছে সাধারণত পুরুষদের থেকে মহিলাদের মধ্যেই হাড়ের রোগ বেশি হচ্ছে। তার মধ্যে অন্যতম অস্টিওপোরোসিস। সমীক্ষা বলছে, বিশ্বে বয়সজনিত কারণে হাড়ে যে সমস্যাগুলি বা রোগ দেখা দেয় তার মধ্যে অস্টিওপোরোসিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাই বেশি থাকে। বয়স ৩০-এর কোঠা পেরোলেই এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পেতে থাকে। হাড়ের ঘনত্ব কমে যাওয়ার ফলে সাধারণত অস্টিওপোরেসিসের সমস্যা দেখা দেয়। ঋতুবন্ধের পর থেকে মহিলাদের মধ্যে অন্যান্য শারীরিক সমস্যার পাশাপাশি অস্টিওপোরোসিসের সমস্যা প্রবল ভাবে দেখা দেয়। সারা বিশ্বে বয়স ৫০ ছাড়িয়ে গিয়েছে এমন মহিলাদের ৩ জনের মধ্যে ১ জন আক্রান্ত হন এই রোগে। এই মুহূর্তে সারা বিশ্বে প্রায় ২০ কোটি মানুষ অস্টিওপোরোসিস রোগেআক্রান্ত। তার মধ্যে প্রায় ৬৮ শতাংশই মহিলা। তবে জীবনধারাতে খানিক বদল আনলে অস্টিওপোরোসিসের ঝুঁকি কিছুটা হলেও কমানো যাবে।

নিয়মিত শরীরচর্চা

নিয়মিত হাঁটাহাঁটি, ব্যায়াম, যোগাসন করার অভ্যাস হাড়ের যত্ন নিতে সাহায্য করে। হাড়ের ক্ষয় হ্রাস করে। বয়স নির্বিশেষে সকলেরনিয়মিত শরীরচর্চা করাটা জরুরি। শুধু অস্টিওপোরোসিস নয়। হাড়ের অন্যান্য সমস্যা দূর করতেও ব্যায়াম করাটা প্রয়োজন।

Advertisement

ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার খান

হাড়ের যত্ন নিতে ক্যালশিয়ামের ভূমিকা অপরিহার্য। ভিটামিন ডি শরীরে ক্যালশিয়াম শোষণে সাহায্য করে। হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতিতেও অনেক ভূমিকা পালন করে ভিটামিন ডি। শরীরে ভিটামিন ডি-র ঘাটতি তৈরি হলে হাড়ের ঘনত্ব কমে যাওয়ার এবং হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। ভিটামিন ডি-এর সর্বোত্তম উৎস হল সূর্যালোক। এ ছা়ড়াও দুগ্ধজাত দ্রব্য, ডিম, বিভিন্ন মরসুমি ফল, মাছের মতো ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার অস্টিওপোরোসিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমায়।

ক্যালশিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খান

বিভিন্ন প্রকার মাছ, বাদাম, ব্রকোলির মতো ক্যালশিয়াম সমৃদ্ধ খাবার হাড়ের ঘনত্ব তৈরি করতে সাহায্য করে। শরীরে ক্যালশিয়ামের মাত্রা হ্রাস পেলে তার সরাসরি প্রভাব পড়ে হাড়ে। ক্যালশিয়াম অস্টিওপোরোসিসের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।

লবণ কম খান এবং মদ্যপান এড়িয়ে চলুন।

লবণ কম খান এবং মদ্যপান এড়িয়ে চলুন।
প্রতীকী ছবি।


মদ্যপান এড়িয়ে চলুন

নিয়মিত মদ্যপানের প্রবণতা শরীরে ক্যালশিয়াম শোষণের ক্ষমতা হ্রাস করে। দীর্ঘ দিন ধরে হাড়ের সুস্থতা বজায় রাখতে ক্যালশিয়াম অপরিহার্য। শরীরে ক্যালশিয়ামের মাত্রা বজায় রাখতে তাই এড়িয়ে চলুন মদ্যপান।

লবণ কম খান

মহিলাদের ক্ষেত্রে ঋতুবন্ধের পর নুন এবং নুনজাতীয় খাবার এড়িয়ে চলাই ভাল। নুন শরীরে ক্যালশিয়ামের মাত্রা কমিয়ে দেয়। ফলে হাড় ক্ষয়ের আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement