×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জুন ২০২১ ই-পেপার

দেশ

অ্যান্টিলিয়ার অন্দরমহলে নতুন যা যা এসেছে শ্লোকার দৌলতে, পুত্রবধূকে নিয়ে জানালেন শাশুড়ি নীতা

নিজস্ব প্রতিবেদন
২০ অগস্ট ২০১৯ ১১:০৭
সেলেব পরিবারেও শাশুড়ি-পুত্রবধূ সম্পর্ক বহুচর্চিত। সেই ধারার ব্যতিক্রম হয়নি নীতা ও শ্লোকা অম্বানীর ক্ষেত্রেও। হাই প্রোফাইল পরিবারে রাজকীয় বিয়ের পরে কেমন আছেন শ্লোকা, তা নিয়েও নেটিজেনদের কৌতূহলের সীমা নেই।

চলতি বছরের মার্চ মাসে বিয়ে হয় আকাশ-শ্লোকার। মুকেশ ও নীতার বড় ছেলে আকাশ এবং মেয়ে ঈশার বাল্যবন্ধু শ্লোকা।
Advertisement
ভারতের বিখ্যাত হিরে ব্যবসায়ী রাসেল মেহতার মেয়ে শ্লোকা এখন ধনীতম ভারতবাসীর বড় পুত্রবধূ। বিয়ের আগে থেকেই শ্লোকাকে অম্বানী পরিবারের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছে। বরাবরই গ্ল্যামারাস শাশুড়ি ও ননদের পাশে সপ্রতিভ ভাবে নিজের ব্যক্তিত্বকে মেলে ধরেছেন তিনি।

কিছুদিন আগেই ছিল শ্লোকার জন্মদিন। বিয়ের পরে শ্লোকা আকাশ অম্বানী হিসেবে তাঁর প্রথম জন্মদিন। তাঁদের অন্যান্য অনুষ্ঠানের মতো পুত্রবধূর জন্মদিনেও চমক ছিল অম্বানীদের তরফে।
Advertisement
আন্তরিক ভিডিয়োয় শ্লোকাকে শুভেচ্ছা জানান অম্বানী ও রাসেল পরিবারের সদস্য এবং অন্য শুভানুধ্যায়ীরা। সেখানে শ্লোকার কাছে আব্দার জানানো হয়, খুব তাড়াতাড়ি তাঁদের পরিবারে নতুন অতিথিকে আনার জন্য।

তবে বাকিদের থেকে বেশ আলাদা ছিল শাশুড়ি নীতা অম্বানীর শুভেচ্ছাবার্তা। তিনি জানিয়েছেন, শ্লোকা আসার পরে অ্যান্টিলিয়ায় কী কী পরিবর্তন হয়েছে। নীতার কথায়, শ্লোকার  দৌলতে অ্যান্টিলিয়া এখন বিশ্বের সেরা ফুড ডেস্টিনেশন।

নীতা জানিয়েছেন, শ্লোকা এসে তাঁদের মেনুতে অনেক নতুন কিছু স‌ংযোজন করেছেন। যেমন নানা স্বাদের পপকর্ন, কাপকেক এবং রকমারি চা। সে সব চায়ের নাম নাকি তিনি এর আগে শোনেনইনি। বলছেন নীতা।

পুত্রবধূ যে বই পড়তে খুব ভালবাসেন, জানাতে ভোলেননি নীতা। শ্লোকা একমুহূর্তও বই ছাড়া থাকতে পারেন না। পুত্রবধূর জন্য তাঁরও বই পড়ার অভ্যাস ফিরে এসেছে, জানিয়েছেন আপ্লুত নীতা।

অম্বানী পরিবারে ক্রিকেটের প্রতি ভালবাসা ছিলই। কিন্তু ক্রিকেটপাগল শ্লোকা পরিবারে আসার পরে এই খেলা নিয়ে তাঁদের উন্মাদনা এখন তুঙ্গে। বলছেন নীতা। তাঁরা এখন ক্রিকেট-অবসেসড।

তাঁর ছেলে আকাশের জীবনে এ ভাবেই হাসি, নাচ-গানের ছন্দ আর ভালবাসায় ভরিয়ে রাখবেন শ্লোকা, শুভেচ্ছা নীতা অম্বানীর।

নেটিজেনদের কাছে নীতার ভাবমূর্তি বরাবরই উজ্জ্বল। খুব কম সময়ের ব্যবধানে তিনি দু’বার শাশুড়ি হয়েছেন। প্রথমবার জামাই আনন্দ পিরামলের এবং দ্বিতীয়বার পুত্রবধূ শ্লোকার।

জামাই আনন্দ এবং পুত্রবধূ শ্লোকা দু’জনের সঙ্গে নীতার সম্পর্ক খুব সুন্দর। ছোট ছেলে অনন্তের বান্ধবী রাধিকা মার্চেন্টের প্রতিও তিনি আন্তরিক।