×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৫ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

বিজিবির তথ্যই অস্ত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ০৫ জানুয়ারি ২০২০ ০৩:০৩
ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

নয়া নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) পাশ হওয়ার পরে ভারত ছেড়ে বাংলাদেশিদের ফিরে যাওয়ার ঘটনা বেড়েছে বলে স্বীকার করে নিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। প্রতিবেশী দেশের সীমন্তরক্ষী বাহিনীর হিসাবে নভেম্বর-ডিসেম্বরে প্রায় ৪৪৫ জন বাংলাদেশি নাগরিক সীমান্ত পেরিয়ে নিজের দেশে ফেরার সময়ে ধরা পড়েছেন। বিজিবি-র এই তথ্যে উৎসাহিত বিজেপি নেতৃত্ব। দলের দাবি, মোদী
সরকারের আনা আইনে অনুপ্রবেশকারীরা ভয় পেয়ে দেশে ফিরছেন। এ থেকেই স্পষ্ট মোদী সরকার যে আইন এনেছেন তা দেশের স্বার্থেই এনেছেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রের খবর, রেল পুলিশ ছাড়াও পশ্চিমবঙ্গ-সহ উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলি থেকে যে তথ্য আসছে তাতে দেখা যাচ্ছে দিল্লি, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র, কর্নাটকে কাজের খোঁজে যাওয়া অবৈধ বাংলাদেশিরা পশ্চিমবঙ্গের মাধ্যমে বাংলাদেশে ফিরে যাচ্ছেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের মতে, ভারত ও বাংলাদেশের অরক্ষিত সীমান্ত দিয়ে রোজ প্রায় ৫০০-৭০০ জন বাংলাদেশে ফিরছেন। তাঁদের খুব অল্প সংখ্যকই ধরা পড়েছেন। পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে মন্ত্রক জানিয়েছে, গত এক বছরে যেখানে ১০০০ জন বাংলাদেশ ফিরতে ধরা পড়েছেন, সেখানে বছরের শেষ দুই মাসে সেই সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় সাড়ে ৪৪৫-এ।

বিজিবি-এর ডিজি সাফিনুল ইসলাম দিল্লিতে জানিয়ে গিয়েছিলেন, বাংলাদেশে অবৈধ ভাবে প্রবেশের সময়ে ধরা পড়ারা সকলেই ভারতে তাদের আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করতে কিংবা কাজের খোঁজে গিয়েছিলেন। তাঁরা বাংলাদেশেরই নাগরিক। উজ্জীবিত বিজেপি শিবির বলছে, শুরু থেকেই কেন্দ্র বলে আসছে ওই আইন এ দেশে আসা শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য আনা হয়েছে। এর সঙ্গে নাগরিকত্ব হারানোর সম্পর্ক নেই।

Advertisement
Advertisement