Advertisement
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

টমটম যাত্রা মঞ্চে লালুর পাশে নীতীশ

অবশেষে লালুপ্রসাদের সঙ্গে এক মঞ্চে প্রচারে ‘রাজি’ হলেন নীতীশ কুমার। গত কাল জেডিইউয়ের সর্বভারতীয় সভাপতি শরদ যাদবের সঙ্গে ঘন্টা দু’য়েক রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন নীতীশ।

ইফতার পার্টিতে লালু-নীতীশ। ছবি: পিটিআই।

ইফতার পার্টিতে লালু-নীতীশ। ছবি: পিটিআই।

দিবাকর রায়
পটনা শেষ আপডেট: ২০ জুলাই ২০১৫ ০২:৫৭
Share: Save:

অবশেষে লালুপ্রসাদের সঙ্গে এক মঞ্চে প্রচারে ‘রাজি’ হলেন নীতীশ কুমার।

Advertisement

গত কাল জেডিইউয়ের সর্বভারতীয় সভাপতি শরদ যাদবের সঙ্গে ঘন্টা দু’য়েক রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন নীতীশ। দলীয় সূত্রে খবর, সেখানেই লালুর সঙ্গে যৌথ সভা করতে সম্মত হয়েছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী। তবে কবে, কখন দুই নেতা এক মঞ্চে জনসভা করবেন— তা নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু জানানো হয়নি।

জেডিইউ অন্দরমহলের খবর, এখনও পর্যন্ত ঠিক রয়েছে বিজেপির ‘পরিবর্তন রথে’র পাল্টা হিসেবে লালুপ্রসাদের ‘টমটম যাত্রা’য় হাজির থাকবেন নীতীশ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মজফফরপুরে ২৫ জুলাইয়ের সভার পরেই পাল্টা সমাবেশ করা হবে। সেখান থেকেই এক হাজার ঘোড়ার গাড়িতে নির্বাচনী যাত্রা শুরু করা হবে। তার আগে জাতি সংক্রান্ত জনগণনার তথ্য প্রকাশের দাবিতে ২২ জুলাই লালুপ্রসাদের অবস্থান সভায় হাজির থাকবেন শরদ যাদব। ২৬ জুলাই দিনভর অনশন করবেন লালু। সেখানেও সদলবলে যাবেন শরদ। বিরোধী শিবিরের বক্তব্য, এ ভাবে ২৭ জুলাই লালুপ্রসাদের ডাকা বিহার বনধে সরকারি শীলমোহর পড়তে চলেছে।

জেডিইউ সূত্রে জানা গিয়েছে, নীতীশ কুমার-লালুপ্রসাদ এক সঙ্গে সভা করবেন না বলে বিরোধী দলগুলি প্রচার করছে। কংগ্রেস নেত্রী সনিয়া গাঁধী বা রাহুল গাঁধী লালুপ্রসাদকে মঞ্চে নিয়ে প্রচার করবেন না বলেও রটনা রয়েছে। এমনকী পটনা-সহ রাজ্যের অন্য জায়গায় যে হোর্ডিং লাগানো হয়েছে, তাতেও শুধুমাত্র নীতীশ কুমারের ছবি রয়েছে। এর ফলে মহাজোটের হয়ে কাজ করা কর্মী-সমর্থকদের কাছে ভুল বার্তা যাচ্ছে। নির্বাচনে তার প্রভাব পড়বে বলেও আশঙ্কা করছেন মহাজোট নেতৃত্ব। বিজেপির পরিবর্তন রথের প্রচারে নীতীশ-লালুর পুরনো পরস্পরবিরোধী বক্তব্যের অডিও-ভিডিও দেখানো হচ্ছে। তাতে কিছুটা হলেও দু’তরফেই টানাপড়েন তৈরি হচ্ছে। সেই কারণে লালু-নীতীশের এক সঙ্গে সভা করে বার্তা দেওয়া উচিত বলেই মনে করছেন জেডিইউ নেতৃত্বের একাংশ। সেই বার্তা নিয়েই আলোচনা করেছেন শরদ যাদব ও নীতীশ কুমার। তবে কিছুটা হলেও নীতীশ অনুগামীরা সময় নিতে চাইছেন। তার পর যৌথ প্রচারে নামার দিন ঘোষণার কথা বলা হচ্ছে।

Advertisement

শুধু লালুপ্রসাদ নন, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবালও নীতীশ কুমারের সঙ্গে সভা করবেন বলে জেডিইউয়ের তরফে দাবি করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই আম আদমি পার্টির তরফে ঘোষণা করা হয়েছে, বিহার নির্বাচনে তাঁরা কোনও প্রার্থী দেবে না। জেডিইউ-আরজেডি-কংগ্রেস-এনসিপির মহাজোটকেই সমর্থন করবে কেজরীবালের দল। খুব শীঘ্রই নীতীশ কুমার এবং অরবিন্দ কেজরীবাল যৌথ সভা করবেন। পটনার গাঁধী ময়দানেই সেই সভা হবে। তবে কবে সেই সভা হবে তা নিয়ে কোনও তরফে কিছু বলা হয়নি। শরদ যাদব অবশ্য জানিয়েছেন, আসন বণ্টন নিয়ে মহাজোটের দলগুলির মধ্যে আলোচনা এখনও শুরু হয়নি। তাঁর কথায়, ‘‘আসন বণ্টন নিয়ে কোনও সমস্যা হবে না। মহাজোটের দলের নেতারা একসঙ্গে বসে সিদ্ধান্ত নেবেন।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.