Advertisement
৩০ জানুয়ারি ২০২৩
BJP

রেল রোকোয় চিন্তা, বিজেপি পাল্টা প্রচারে

আগামী বৃহস্পতিবার দেশ জুড়ে কৃষকদের ‘রেল রোকো’ কর্মসূচির আগে কৃষি আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন নিয়ে বৈঠকে বসল বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৫:০৯
Share: Save:

আগামী বৃহস্পতিবার দেশ জুড়ে কৃষকদের ‘রেল রোকো’ কর্মসূচির আগে কৃষি আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন নিয়ে বৈঠকে বসল বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব। বুধবার বিজেপির সদর দফতরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর ও বিজেপি সভাপতি জে পি নড্ডা আলোচনায় বসেন পঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ ও রাজস্থানের দলীয় নেতাদের সঙ্গে। যে চার রাজ্যে কৃষি আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে সব থেকে জোরালো। সূত্রের খবর, বৈঠক শেষে ওই চার রাজ্যের বিজেপি নেতাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পাল্টা প্রচারে নামার। এলাকায় ঘুরে পরিস্থিতি সরেজমিনে দেখার পাশাপাশি তিন কৃষি আইনের ভাল দিকগুলি তুলে ধরতে বলা হয়েছে তাঁদের।

Advertisement

বৃহস্পতিবার কৃষক সংগঠনগুলি সারা দেশে চার ঘণ্টা রেল অবরোধের ডাক দিয়েছে। আজ পঞ্জাবের কৃষক সংগঠনগুলি ফের জানিয়েছে, বেলা ১২টা থেকে বিকেল ৪টে পর্যন্ত রেল অবরোধ করা হবে। একই সঙ্গে, দিল্লি সীমানায় কৃষকদের আন্দোলন যাতে দুর্বল না-হয়ে পড়ে, তার জন্য পঞ্জাবে কিসান মহাপঞ্চায়েত আয়োজন না-করে সবাইকে রাজধানীর উপকণ্ঠে জড়ো হওয়ার আর্জি জানিয়েছে সংগঠনগুলি। পঞ্জাবে মহাপঞ্চায়েত বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত কয়েক দিনে সিংঘু, টিকরি সীমানায় কৃষকদের জমায়েত কিছুটা ফিকে দেখিয়েছে। কৃষক নেতাদের অবশ্য বক্তব্য, শীতের পরে কৃষকরা এখন গ্রীষ্মের জন্য তৈরি হচ্ছেন। এত দিন শীতের মধ্যে ট্র্যাক্টর-ট্রলিতে দিন কাটাচ্ছিলেন তাঁরা। এ বার ফ্যান, কুলার, জলের বন্দোবস্ত করা হচ্ছে। ২৬ ফেব্রুয়ারি আন্দোলনের তিন মাস পূর্তিতে বিশেষ কর্মসূচি নেওয়া হবে। তার আগে ১৮ ফেব্রুয়ারির রেল রোকো সফল করে কেন্দ্রের উপরে চাপ তৈরি করতে চান চাষিরা।

এখানেই প্রমাদ গুনছে বিজেপি নেতৃত্ব। কারণস এমনিতেই পশ্চিম উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, রাজস্থানে একের পর এক কিসান মহাপঞ্চায়েতে ভিড় উপচে পড়ছে। হরিয়ানার কৃষকরা রাজ্যের অনিল ভিজ, জে পি দালালের মতো মন্ত্রীদের ‘কৃষক বিরোধী’ আখ্যা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তাঁদের হটানোর দাবি তুলেছেন। আজ সংযুক্ত কিসান মোর্চার বৈঠকে উত্তরপ্রদেশের কৃষকরা
জানিয়েছেন, মূল্যবৃদ্ধির হার বাড়লেও আখের দাম বাড়ছে না। শুধু উত্তরপ্রদেশেই আখের দাম বাবদ চাষিদের বকেয়া প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা। উত্তরপ্রদেশের বিজেপি নেতারা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে জানিয়েছেন, এসপি, রাষ্ট্রীয়
লোক দল থেকে কংগ্রেস— আখের দাম বাবদ চাষিদের পাওনাকে হাতিয়ার করতে চাইছে সব দলই। প্রিয়ঙ্কা সোমবারই বিজনৌরে এই প্রসঙ্গ তুলেছেন।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.