×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জুন ২০২১ ই-পেপার

৫ কমিটির দায়িত্বে কংগ্রেস, রেলে দীনেশ

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৪ ০৩:০২

নাকের বদলে নরুন পেল কংগ্রেস!

প্রধান বিরোধী দলের মর্যাদা জোটেনি। কিন্তু সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান পদ পাওয়ার প্রশ্নে অন্তত কংগ্রেসকে বিমুখ করল না সরকার। আজ কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, মোট পাঁচটি সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান নিযুক্ত করা হয়েছে কংগ্রেস থেকে। সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকগুলির মধ্যে স্বরাষ্ট্র, অর্থ ও বিদেশ মন্ত্রক সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির দায়িত্ব পেলেন যথাক্রমে কংগ্রেসের প্রদীপ ভট্টাচার্য, এম বীরাপ্পা মইলি ও শশী তারুর। ঘটনা হল, যাঁর মন্ত্রিসভায় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রকের দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন বীরাপ্পা মইলি, সেই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহকে রাখা হয়েছে অর্থ বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসেবে। এ রাজ্যের সাংসদদের মধ্যে কংগ্রেসের প্রদীপবাবু ছাড়াও সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যানের পদ পেয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেসের দীনেশ ত্রিবেদী ও কে ডি সিংহ। তাঁদের যথাক্রমে রেল এবং পরিবহণ ও পর্যটন কমিটির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। কংগ্রেসের সহ-সভাপতি রাহুল গাঁধী জায়গা পেয়েছেন বিদেশ মন্ত্রকের স্থায়ী কমিটিতে। তথ্য ও প্রযুক্তি কমিটিতে আছেন লালকৃষ্ণ আডবাণী।

সরকারের কাছে প্রথম থেকেই কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির শীর্ষ পদের জন্য দরবার করছিল কংগ্রেস। কিন্তু ওই কমিটির চেয়ারম্যান পদ নিজেদের হাতে রাখার সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি শিবির। তাই শিক্ষা ও ক্রীড়া সংক্রান্ত দু’টি সংসদীয় কমিটির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে জে পি নাড্ডাকে। বিজেপি সূত্রের খবর, দফতরের মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি এবং কমিটির চেয়ারম্যান নাড্ডা দু’জনেই সঙ্ঘ ঘনিষ্ঠ। নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় জায়গা পাওয়ার দৌড়ে গোড়ার দিকে থাকলেও পরে ছিটকে যান রাজীব প্রতাপ রুডি ও বি সি খান্ডুরি। তাঁদের দু’জনকে প্রতিরক্ষা ও বিদ্যুৎ সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির দায়িত্বে আনা হয়েছে। বাণিজ্য সংক্রান্ত কমিটির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ চন্দন মিত্রকে। তৃণমূল ছাড়া আঞ্চলিক অন্যান্য দলগুলির মধ্যে বিএসপি-র সতীশ মিশ্রকে স্বাস্থ্য, বিজেডির পিনাকী মিশ্রকে নগরোন্নয়ন কমিটির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

Advertisement

দলনেত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে রেলের ভাড়া বাড়ানোয় মন্ত্রিত্ব ছাড়তে হয়েছিল দীনেশ ত্রিবেদীকে। আজ রেল সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির দায়িত্ব পেয়ে খুশি দীনেশ। বললেন, “রেল মন্ত্রকের কার্যপ্রণালী কিছুটা হলেও আমি জানি। আমার কাছ হবে গঠনমূলক বিরোধিতা করা।” আর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের মতো গুরুত্বপূর্ণ কমিটির দায়িত্ব পেয়ে প্রদীপবাবুর মন্তব্য, “দ্বিতীয় বাঙালি হিসাবে এই পদের দায়িত্ব পেলাম আমি। এক সময়ে প্রণব মুখোপাধ্যায় ওই পদের দায়িত্বে ছিলেন।”

Advertisement