×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১০ মে ২০২১ ই-পেপার

করোনা আক্রান্তদের ৮০ শতাংশই উপসর্গহীন, দুশ্চিন্তায় আইসিএমআর

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ২০ এপ্রিল ২০২০ ১৪:২৯
উপসর্গহীনদের নিয়ে দুশ্চিন্তা বাড়ছে। ছবি: পিটিআই।

উপসর্গহীনদের নিয়ে দুশ্চিন্তা বাড়ছে। ছবি: পিটিআই।

দেশ জুড়ে এখনও পর্যন্ত যত জন নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের বেশির ভাগের মধ্যেই মারণ ভাইরাসের কোনও উপসর্গ দেখা যায়নি। প্রায় একমাস যাবৎ লকডাউনের মধ্যে দেশে আক্রান্ত্রে সংখ্যা যখন ২০ হাজার ছুঁইছুঁই, ঠিক সেইসময়, এমনই তথ্য সামনে আনলেন ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)-এ গবেষক রমণ আর গঙ্গাখেড়কর। বিষয়টি অত্যন্ত উদ্বেগজনক বলে জানিয়েছেন তিনি।

এনডিটিভি-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রমণ আর গঙ্গাখেড়কর বলেন, ‘‘এখনও পর্যন্ত যত জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের ৮০ শতাংশের মধ্যেই কোনও উপসর্গ দেখা যায়নি। তাই উপসর্গহীনদের কী ভাবে শনাক্ত করা যাবে, তা-ই এখন আমাদের প্রধান দুশ্চিন্তা হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ সংক্রমিত ব্যক্তি যাঁদের সংস্পর্শে এসেছেন, জনে জনে গিয়ে তাঁদের পরীক্ষা করে দেখা ছাড়া আর কোনও ভাবে নতুন করে কেউ সংক্রমিত হয়েছেন কিনা, তা বোঝার উপায় নেই।’’

ভারতের মতো দেশে উপসর্গহীনদের জনে জনেপরীক্ষা করা অসাধ্য। তাই সংক্রমিত ব্যক্তিরা কার কার সংস্পর্শে এসেছেন, এই মুহূর্তে তা খুঁজে বার করা ছাড়া আর কোনও উপায় নেই বলে মেনেছেন গঙ্গাখেড়কর। কিন্তু তাতে অনেক দেরি হয়ে যাবে না তো? তাঁর বক্তব্য, ‘‘আশাকরি তা হবে না। মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহেই অন্য উপায় বার করা যাবে বলে আশাবাদী আমরা।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: কলকাতা, হাওড়া-সহ রাজ্যের ৭ জেলার পরিস্থিতি গুরুতর, বলল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক​

কিন্তু উপসর্গহীনদের শনাক্ত করতে পদ্ধতিগত কোনও পরিবর্তন ঘটানো কি সম্ভব নয়? জবাবে গঙ্গাখেড়কর বলেন, ‘‘আর কি পরিবর্তন করা যাবে? তেমন কোনও সম্ভাবনা তো দেখছি না। কোথাও সংক্রমণ ধরা পড়লে বা হটস্পটগুলিতে গিয়ে সেখানকার মানুষের ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো রোগ রয়েছে কি না, তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। আর কী পদক্ষেপ করা যেতে পারে জানি না।’’

আরও পড়ুন: শুরুতেই বেলগাছিয়া বস্তি, আজ র‌্যাপিড টেস্ট শুরু হল রাজ্যে​

উপসর্গহীনদের নিয়ে এর আগে দুশ্চিন্তা প্রকাশ করেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবালও। রবিবার সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানান, সম্প্রতি ৭৩৬ জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করেন তাঁরা। তার মধ্যে ১৮৬ জনের শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাস ধরা পড়ে। এই আক্রান্তদের কেউই আগেভাগে কিছু টের পাননি বলে জানান তিনি।

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

Advertisement