×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৩ অগস্ট ২০২১ ই-পেপার

বাবা-মাকে সতর্ক করতে গিয়ে ধসে তলিয়ে গেলেন নৃত্যশিল্পী প্রিয়ঙ্কা

নিজস্ব সংবাদদাতা
গুয়াহাটি ২৯ জুন ২০২০ ১৮:০৯
দুর্ঘটনায় নৃত্যশিল্পী প্রিয়ঙ্কা বড়োর মৃত্যু।

দুর্ঘটনায় নৃত্যশিল্পী প্রিয়ঙ্কা বড়োর মৃত্যু।

রাতভর বৃষ্টির ফলে লাগোয়া পাহাড় থেকে মাটি ধসার শব্দ পেয়েছিলেন মেয়ে। তাই উপরে থাকা বাবা-মাকে সতর্ক করতে ঘুম চোখেই বিছানা ছেড়ে উঠে আসেন। ঠিক তখনই হুড়মুড়িয়ে সামনের পাহাড়ের অংশ গাছপালা-সহ আছড়ে পড়ে ২১ বছরের প্রিয়ঙ্কা বড়োর উপরে। প্রায় ৪৫ মিনিটের চেষ্টায় মাটি ও গাছ সরিয়ে যখন বার করা হল, প্রতিভাবান নৃত্যশিল্পী প্রিয়ঙ্কা তখন নিথর। টিনের চাল আর দরমার ঘর থেকে প্রথম বার বিদেশে নাচতে যাওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছিলেন তিনি। গুয়াহাটির হিড়িম্বাপুরের ঘটনা। প্রজাতন্ত্র দিবসে প্রধানমন্ত্রীর সামনে নৃত্য প্রদর্শন করা প্রিয়ঙ্কার লন্ডন যাওয়ার কথা চলছিল। ম্যাট্রিকে নৃত্য ও সঙ্গীত বিষয়ে রাজ্যের মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছিলেন প্রিয়ঙ্কা।

টানা বৃষ্টির জেরে কয়েক দিন ধরেই গুয়াহাটিতে খারগুলির পাহাড়ি এলাকাগুলিতে মাটি খসে পড়ছিল। রাজভবনে ধস নেমে বন্ধ হয়েছে নীচে থাকা বরঠাকুর হাসপাতালও। এ ছাড়া পাণ্ডু, ধীরেনপাড়া, গীতানগরেও ধস নামে। ধসের খবর নিতে রাজ্যের অর্থমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মাকে আজ ফোন করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

গোয়ালপাড়ার বলদমারিতে কলার ভেলা থেকে ব্রহ্মপুত্রে পড়ে গিয়ে জেসমিনা খাতুন নামে এক কিশোরীর মৃত্যু হয়। বেলগুড়িতে মাছ ধরতে গিয়ে বন্যার জলে পড়ে মারা গিয়েছেন লক্ষেশ্বের দাস। সব মিলিয়ে বন্যা ও ধসে এখন পর্যন্ত রাজ্যে মোট ৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্যের ২৩টি জেলা মিলিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ৯ লক্ষ ২৬ হাজার মানুষ। গুয়াহাটিতে ব্রহ্মপুত্রের জল বিপদসীমা ছাড়িয়ে বইছে। কাজিরাঙায় ডুবেছে ৯০টি বন শিবির। অসমে বন্যায় প্রাণহানির ঘটনায় শোক প্রকাশ করে পাশে থাকার বার্তা পাঠিয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেব।

Advertisement
Advertisement