Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

জীবনাবসান হল জর্জ ফার্নান্ডেজের

ভারতীয় রাজনীতির অন্যতম বর্ণময় চরিত্র জর্জ ফার্নান্ডেজ মঙ্গলবার প্রয়াত হলেন। দিল্লিতে নিজের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। বয়স হয়েছিল

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ৩০ জানুয়ারি ২০১৯ ০২:১৩
Save
Something isn't right! Please refresh.
ভারতীয় রাজনীতির অন্যতম বর্ণময় চরিত্র জর্জ ফার্নান্ডেজ।

ভারতীয় রাজনীতির অন্যতম বর্ণময় চরিত্র জর্জ ফার্নান্ডেজ।

Popup Close

ভারতীয় রাজনীতির অন্যতম বর্ণময় চরিত্র জর্জ ফার্নান্ডেজ মঙ্গলবার প্রয়াত হলেন। দিল্লিতে নিজের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন ফার্নান্ডেজ। এক সময়ের ডাকসাইটে শ্রমিক নেতার স্মৃতিভ্রংশও হয়েছিল। সম্প্রতি সোয়াইন ফ্লুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। অসুস্থতার কারণে দীর্ঘদিন তিনি লোকচক্ষুর আড়ালে ছিলেন।

১৯৩০ সালে কর্নাটকের ম্যাঙ্গালুরুতে এক খ্রিস্টান পরিবারে ফার্নান্ডেজের জন্ম। শ্রমিক সংগঠনে কাজের মধ্য দিয়ে তাঁর রাজনীতি শুরু। জয়প্রকাশ নারায়ণের অনুগামী ওই নেতা জাতীয় রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিলেন ১৯৭৪ সালে দেশজোড়া রেল ধর্মঘটের মধ্য দিয়ে। ওই বছরের ৮ থেকে ২৭ মে পর্যন্ত যে রেল ধর্মঘট হয়েছিল, তার অন্যতম হোতা ছিলেন তৎকালীন অল ইন্ডিয়া রেলওয়ে মেনস ফেডারেশনের সভাপতি ফার্নান্ডেজ। বেতন বৃদ্ধি এবং আট ঘণ্টা কাজের দাবিতে রেল ধর্মঘটে শামিল হয়েছিলেন প্রায় ১৭ লক্ষ রেলকর্মী। জরুরি অবস্থার সময় ইন্দিরা-বিরোধী ভূমিকা তাঁকে সংসদীয় রাজনীতিতে আরও বেশি পরিচিতি দিয়েছিল।

ফার্নান্ডেজের রাজনৈতিক জীবন যেমন বর্ণময়, তেমনই বিতর্কিতও। রেল ধর্মঘটের অন্যতম কান্ডারিই ১৯৮৯ সালে ভি পি সিংহ সরকারের রেলমন্ত্রী হয়েছিলেন। রাজনৈতিক জীবনের প্রথম দিকে আরএসএসের তীব্র সমালোচক ফার্নান্ডেজ, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের প্রতিরক্ষামন্ত্রী হয়েছিলেন। মন্ত্রী থাকাকালীন বিতর্কেও জড়িয়েছে তাঁর নাম। মোরারজি দেশাই সরকারের শিল্পমন্ত্রী ছিলেন ফার্নান্ডেজ। তাঁর সঙ্গে সংঘাতের জেরে ভারত ছাড়তে হয়েছিল কোকাকোলা এবং আইবিএমের মতো সংস্থাকে। ১৯৯৮ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ফার্নান্ডেজ দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ছিলেন। তাঁর আমলেই কার্গিল যুদ্ধ এবং পোখরানে পরমাণু বোমা পরীক্ষা হয়েছিল। ২০০২ সালে কার্গিল শহিদদের কফিন কেলঙ্কারিতে নাম জড়িয়েছিল ফার্নান্ডেজের।

Advertisement

এই প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের প্রয়াণে দলমত নির্বিশেষে নেতানেত্রীরা শোকপ্রকাশ করেছেন। একাধিক টুইটে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, ‘‘জর্জ সাহেব স্পষ্টবাদী এবং

নির্ভীক নেতা ছিলেন। মতাদর্শ থেকে কখনওই বিচ্যুত হননি। জরুরি অবস্থার বিরুদ্ধে তাঁর লড়াই স্মরণীয়।’’ শোক প্রকাশ করেছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী। দীর্ঘদিনের পরিচিতির কথা উল্লেখ করে শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement