Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৪ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

দাসোর সময়সীমার মধ্যেই রাফাল যুদ্ধবিমান বানানো সম্ভব, সরকারকে বার্তা প্রাক্তন হ্যাল অধিকর্তার

হ্যালের প্রাক্তন অধিকর্তার দাবি,  নিজের ক্ষমতায় রাফাল যুদ্ধবিমান বানাতে এখনও ভারত এবং ফ্রান্সের আলোচনা করার অবকাশ আছে এবং সেই উদ্যোগী। যে ৩৬

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৯ জানুয়ারি ২০১৯ ১৮:৫১
Save
Something isn't right! Please refresh.
রাফাল যুদ্ধবিমান। ছবি: এএফপি।

রাফাল যুদ্ধবিমান। ছবি: এএফপি।

Popup Close

রাফাল যুদ্ধবিমান বানানোর ক্ষমতা আছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস লিমিটেড (হ্যাল)-এর। শুধু তাই নয়, ফরাসি সংস্থা দাসো এভিয়েশন যে সময়ে ১০০টি রাফাল যুদ্ধবিমান বানানোর কথা বলেছে, সেই সময়ের মধ্যেই তা তৈরি করা সম্ভব বলে জানালেন হ্যালের প্রাক্তন অধিকর্তা অশোক সাক্সেনা। সর্বভারতীয় একটি সংবাদ মাধ্যমে এক প্রবন্ধে একথা জানিয়েছেন তিনি।

অশোক সাক্সেনার দাবি, ‘‘রাফাল যুদ্ধবিমান বানানোর অভিজ্ঞতা, পরিকাঠামো এবং দক্ষতা আছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা হ্যালের। বেশ কয়েক বছর ধরেই অত্যাধুনিক এবং আন্তর্জাতিক মানের যুদ্ধবিমান বানানোর অভিজ্ঞতা আছে এই সংস্থার। প্রযুক্তি হাতে এলে মিগ সিরিজের যুদ্ধবিমান, জাগুয়ার, এজেটি হকের মতো বিমান বানিয়েছে এই সংস্থা। দীর্ঘ দিন ধরে এই সব যুদ্ধবিমান বানিয়ে ভারতীয় সেনার হাতে তুলে দিয়েছে হ্যাল।’’

সংবাদ মাধ্যমে অশোক সাক্সেনা জানিয়েছেন, মূলত দু’টি বিষয় নিয়ে মতবিরোধের জেরেই ২০১১-১২ সালে এই চুক্তির কাছাকাছি এসেও তা ভেস্তে যায়। এই দু’টি বিষয় ছিল কাজের সময় এবং ফরাসি সংস্থা দাসো অ্যাভিয়েশনের দেওয়া গ্যারান্টি বা নিশ্চয়তা। যদিও এই প্রশ্নগুলি অনেক আগে ওঠা উচিত ছিল, কারণ ভারতীয় বায়ুসেনার বিমানের সংখ্যা অত্যন্ত কমে গিয়েছিল। যে কারণে চুক্তিতে দেরি হওয়ার ফলে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল ভারতীয় বায়ুসেনাই, এমনটাই মত অশোক সাক্সেনার।

Advertisement

আরও পড়ুন: চাকরিতে হেনস্থার জের! রাজনীতিতে যোগ দিলেন কাশ্মীরের আইএএস টপার

একই সঙ্গে হ্যালের প্রাক্তন অধিকর্তার দাবি, নিজের ক্ষমতায় রাফাল যুদ্ধবিমান বানাতে এখনও ভারত এবং ফ্রান্সের আলোচনা করার অবকাশ আছে এবং সেই উদ্যোগ নেওয়া উচিত এখনই। যে ৩৬টি যুদ্ধবিমান ভারতে পাঠাচ্ছে রাফাল সংস্থা সেই একই মানের যুদ্ধবিমান বানানো সম্ভব বলে জানিয়েছেন অশোক সাক্সেনা। নতুন করে চুক্তি সম্পন্ন হলে সম্পূর্ণ প্রযুক্তি হস্তান্তরের কথাই ভাবা উচিত বলে জানিয়েছেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘‘শ্রম সময়ের ক্ষেত্রে দাসো যে সময়ের মধ্যে ফ্রান্সে এই যুদ্ধবিমান বানিয়ে দেওয়ার কথা জানিয়েছে, সেই সময়ের মধ্যেই ভারতেও এই বিমান বানাতে পারবে ভারত।’’

আরও পড়ুন: মিনিটে ৮০০ বুলেট! দেশীয় এই কার্বাইন টেক্কা দিচ্ছে রাশিয়ান কার্বাইনকেও!

একই সঙ্গে তাঁর আক্ষেপ, ‘‘২০১২ সালে এই চুক্তি সম্পন্ন হলে ২০১৪-১৫ নাগাদ এই বিমান তৈরির কাজ শুরু হয়ে যেত ভারতে। আর ২০১৭-১৮ সালে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত অবস্থায় ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে তুলে দেওয়া যেত এই অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান।’’

(ভারতের রাজনীতি, ভারতের অর্থনীতি- সব গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement