×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জুন ২০২১ ই-পেপার

‘সুশিক্ষা দিতে হবে মেয়েদের, তবেই রোখা যাবে ধর্ষণ’, মন্তব্য বিজেপি বিধায়কের

সংবাদ সংস্থা
লখনউ ০৪ অক্টোবর ২০২০ ১১:১৪
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

ছোট থেকে সুশিক্ষায় বড় করতে হবে মেয়েদের। তাহলেই ধর্ষণের ঘটনা এড়ানো যাবে। হাথরসের ঘটনায় এমনিতেই বেকায়দায় যোগী আদিত্যনাথের সরকার। তার মধ্যেই এমন মন্তব্য করে তাদের অস্বস্তি আরও বাড়ালেন সেখানকার বিজেপি বিধায়ক সুরেন্দ্র সিংহ।তাঁর মতে, ধর্ষণের ঘটনা উত্তরোত্তর বেড়ে চলার সঙ্গে শাসনব্যবস্থার কোনও যোগ নেই। বরং বাবা-মায়েরা মেয়েদের কী ভাবে বড় করছেন, সেটা গুরুত্বপূর্ণ।

‘রামরাজ্যে’ ধর্ষণের ঘটনা উত্তরোত্তর বেড়েই চলেছে। হাথরস-কাণ্ডের পরে গত কয়েক দিনে এই ধরনের একাধিক ঘটনা সামনে এসেছে। কী ভাবে এই পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব, সুরেন্দ্রের কাছে তা জানতে চান এক সাংবাদিক। তাতেই বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন বিজেপি বিধায়ক। তিনি বলেন, ‘‘বিধায়ক হওয়ার পাশাপাশি আমি এক জন শিক্ষকও। এই ধরনের ঘটনা রুখতে হলে মেয়েদের ভাল শিক্ষা দিতে হবে। সুশাসন এবং ক্ষমতা প্রদর্শন করে এ সব রোখা যাবে না।’’

সুরেন্দ্র সিংহ আরও বলেন, ‘‘ধর্ষণ রোখা যেমন সরকারের ধর্ম, তেমনই পরিবারের উপরও এই দায় বর্তায়। সরকার তো নিরাপত্তা দেবেই, কিন্তু মেয়েকে ভাল শিক্ষা দেওয়া, তার মনে নীতিবোধ ঢুকিয়ে দেওয়া পরিবারেরই কর্তব্য। সংস্কার এবং সরকার, এই দুইয়ে মিলেই ভারত আরও সুন্দর হয়ে উঠবে। এর অন্য কোনও বিকল্প নেই।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: হাসরথ-কাণ্ডে ধর্ষণের অভিযোগ মুছতে পিআর সংস্থার দ্বারস্থ যোগী​

আরও পড়ুন: প্রিয়ঙ্কার রণে ‘দাদির তেজ’, পোশাকে টান দিল ‘বীরপুরুষ’​

বরাবরই বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য পরিচিত সুরেন্দ্র সিংহ। নাথুরাম গডসে সন্ত্রাসবাদী নয়, মহাত্মা গাঁধীকে মেরে সে ভুল করে ফেলেছে বলে গত বছর মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। তা নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি সেইসময়। এ বছরের গোড়ায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘নিষ্ঠুর-মনের মানুষ’ বলে কটাক্ষ করেন তিনি। তা নিয়েও তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি।

Advertisement