Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৩ অক্টোবর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

দেশ

দেশের এই রাজ্যে কীটনাশক ব্যবহার করলেই বিপুল জরিমানা, হতে পারে জেলও!

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৩ জুন ২০১৯ ১৫:৫১
পাহাড়ে ঘেরা ছোট্ট রাজ্য সিকিম। বরাবরই পর্যটকদের পছন্দের জায়গা। দু’হাত দিয়ে একে আগলে রেখেছে কাঞ্চনজঙ্ঘা। ২০১৬ সালে এই পাহাড়ি রাজ্যটি ভারতের প্রথম জৈব রাজ্য হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে তা হয়ত অনেকেরই জানা নেই।

কী এই জৈব রাজ্য? চাষের জমিতে রাসায়নিক বা কীটনাশক ব্যবহার না করে সম্পূর্ণ জৈব পদ্ধতিতে ফসল ফলানোকেই অর্গানিক চাষ বলা হয়।
Advertisement
কী ভাবে জৈব কৃষি নির্ভর রাজ্য হিসেবে স্বীকৃতি পেল সিকিম?

২০০৩-এ সিকিমে তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী পবন চামলিং প্রথম যখন কীটনাশক এবং রাসায়নিক সার ব্যবহার নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনা নেন তখন সারা রাজ্যে তা আলোড়ন ফেলে দেয়। কৃষকরাও এই সিদ্ধান্তে খুব একটা আস্থাশীল ছিলেন না।
Advertisement
২০০৪ সালে আইন করে সিকিম সরকার রাসায়নিক সার এবং কীটনাশকের উৎপাদন বন্ধ করে দেয়।

এই আইন পাশ হওয়ার পর প্রথম দুই-তিন বছর ফলন বেশ কিছুটা কমে গেলে সে সময় সিকিম সরকারের পক্ষ থেকে কৃষকদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা হয়। আর্থিক মন্দা সত্ত্বেও রাসায়নিক সার ব্যবহারের সঙ্গে কোনও রকম আপস করতে নারাজ ছিলেন চামলিং।

এরপরেই শুরু হয় জৈব চাষ। গোটা সিকিমেই ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা লাভ করতে থাকে তা। ফলনও আগের থেকে অনেক ভাল হতে শুরু করে। লাভের মুখ দেখতে শুরু করেন কৃষকরা।

২০১৪ থেকে কীটনাশকের ব্যবহার সিকিমে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়। জমিতে কীটনাশক ব্যবহার করলে বিশাল আর্থিক জরিমানা, এমনকি তিন মাস পর্যন্ত জেলও হতে পারে।

জৈব চাষের ব্যাপারে সচেতনতা বাড়াতে সিকিমে স্কুলের সিলেবাসের মধ্যেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে জৈব চাষের পদ্ধতি।

২০১৬ সালে কেন্দ্রীয় সরকার সিকিমকে প্রথম ১০০ শতাংশ জৈব রাজ্য হিসেবে ঘোষণা করে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সিকিম সফরে এসে রাজ্যের অরগ্যানিক মডেলের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

শুধু তাই নয়। ২০১৮ সালে কৃষিজৈবিক এবং স্বয়ংসম্পূর্ণ খাদ্য ব্যবস্থা গড়ে তোলার কারণে বিশ্বের সেরা প্রশাসনিক নীতি প্রকরণের স্বীকৃতি হিসেবে ২৫টি দেশের ৫১টি মনোনীত নীতির মধ্যে শ্রেষ্ঠ হিসেবে ফিউচার পলিসি অ্যাওয়ার্ড জিতেছে সিকিম।

২০১৮ সালে কৃষিজৈবিক এবং স্বয়ংসম্পূর্ণ খাদ্য ব্যবস্থা গড়ে তোলার কারণে বিশ্বের সেরা প্রশাসনিক নীতি প্রকরণের স্বীকৃতি হিসেবে ২৫টি দেশের ৫১টি মনোনীত নীতির মধ্যে শ্রেষ্ঠ হিসেবে ফিউচার পলিসি অ্যাওয়ার্ড জিতেছে সিকিম।

ভারতের মতো জনবহুল দেশে যেখানে দূষণের পরিমাণ মাত্রা ছাড়িয়েছে বহু আগেই, রাসায়নিক পদ্ধতিতে চাষবাদের ফলে নানা ধরনের রোগ বাসা বাঁধছে শরীরে সেখানে সিকিমের অর্গ্যানিক মডেল বাকি রাজ্যগুলোর কাছেও মাইলস্টোন বলা যেতেই পারে।