×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১২ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

এ বার খতম ৫ পাক সেনা

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ও শ্রীনগর ০২ জুন ২০১৭ ০৪:৪৪
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

শুধু মুখে হুঁশিয়ারি নয়। পাক হানার জবাবে লাগাতার পাল্টা হামলা শুরু করল ভারত। মঙ্গলবারই নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে পাক সেনার কনভয়ে হামলা চালিয়েছিলেন প্যারা কম্যান্ডোরা। তাতে নিহত হন দুই পাক সেনা। আজ ফের সংঘর্ষবিরতি ভেঙে নৌশেরা ও কৃষ্ণঘাটি সেক্টরে মর্টার হামলা চালায় পাক সেনা। প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই পাল্টা হামলা চালায় ভারত। তাতে পাঁচ পাক জওয়ান নিহত হয়েছেন বলে দাবি সেনার। ভারতের হামলার প্রতিবাদ জানাতে ইসলামাবাদে ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার জে পি সিংহকে ডেকে পাঠায় পাক বিদেশ মন্ত্রক।

সেনার দাবি, আজ নৌশেরা ও কৃষ্ণঘাটি সেক্টরে ভারতীয় সেনার চৌকি লক্ষ করে মর্টার ছোড়ে পাক সেনা। তাতে জেনারেল রিজার্ভ ইঞ্জিনিয়ারিং ফোর্সের এক শ্রমিক নিহত হন। আহত হন জেনারেল রিজার্ভ ইঞ্জিনিয়ারিং ফোর্সের এক চালক ও বিএসএফের এক জওয়ান। মঙ্গলবারের প্যারা কম্যান্ডো হানার জবাবেই পাকিস্তান আক্রমণের তীব্রতা আরও বাড়াতে চাইছে বলে মনে করা হচ্ছে। ভারতের জবাবে ভিম্বের ও বাট্টাল সেক্টরে পাঁচ পাক সেনা নিহত হন। আহত হন ৬ জন। ইসলামাবাদের দাবি, ভারতের গোলাবর্ষণে এক জন স্থানীয় বাসিন্দা নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন চার জন।

কাশ্মীরে জঙ্গি দমন অভিযানেও আরও গতি আনতে চাইছে সেনা। আজ সোপোরের ব্রাথ গ্রামে সেনা-পুলিশের যৌথ অভিযানে খতম হয়েছে দুই হিজবুল জঙ্গি। হিজবুল ও লস্করের জনা ছয়েক সদস্যকে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ। উপত্যকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আজ কাশ্মীরে গিয়েছেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়ত। সেনা গোয়েন্দা সূত্রে খবর, বর্তমানে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর প্রায় ডজনের বেশি ‘লঞ্চপ্যাড’ সক্রিয় রয়েছে। প্রায় দু’শোর কাছাকাছি জঙ্গি পাক সেনার মদতে ভারতে প্রবেশের জন্য বসে রয়েছে। তবে আজ প্রতিরক্ষামন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেন,‘‘ভারতীয় সেনা তাই গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সীমান্তে সতর্ক রয়েছে। যে কোনও হামলার যোগ্য জবাব দেওয়া হচ্ছে। নিজেদের দাপট ধরে রেখেছে। অনুপ্রবেশকারী বা দেশের ভিতরের জঙ্গিই হোক-লাগাতার অভিযান চলছে। তার ফলও পাওয়া যাচ্ছে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন:কুলভূষণকে পেতে জাহিরই কি অস্ত্র দিল্লির

গোয়েন্দাদের মতে, কয়েক সপ্তাহ ধরে সেনা ও আধাসেনা সন্ত্রাসবাদীদের উপরে ক্রমশ আক্রমণের তীব্রতা বাড়াচ্ছে। শুরু হয়েছে ঘরে ঘরে তল্লাশি। জঙ্গিদের কোণঠাসা করে নিকেশের যে পরিকল্পনা সেনা নিয়েছে তাতে প্রমাদ গুনতে শুরু করেছে পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই। সেই কারণে যেখানে সেনা অভিযান চলছে সেখানকার মানুষকে রাস্তায় নামার জন্য উস্কানি দেওয়া হচ্ছে। ব্যবহার করা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া। ফলে উপত্যকার বিভিন্ন স্থানে ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে কেন্দ্র।

এ হেন ছায়াযুদ্ধের পরিস্থিতিতে যে পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনার কোনও সম্ভাবনা নেই তা আজ ফের স্পষ্ট করে দিয়েছেন অরুণ জেটলি। আজ তিনি বলেন, ‘‘ভারত সম্পর্ক সহজ করার জন্য একাধিক পদক্ষেপ করেছে। তার বদলে উরি, পঠানকোটে হামলা হয়েছে। মুন্ডু কেটে নেওয়া হয়েছে ভারতীয় সেনাদের। পাকিস্তান সাফল্যের সঙ্গে আলোচনার পরিবেশ ভেস্তে দিয়েছে!’’

জেটলির আরও দাবি, ‘‘দূর থেকে কাশ্মীর নিয়ে যা ধারণা করা হচ্ছে পরিস্থিতি কিন্তু তার চেয়ে ভাল। দক্ষিণ কাশ্মীরের কিছু অংশে কেবল অশান্তি রয়েছে।’’ কংগ্রেস নেতা মণীশ তিওয়ারির মন্তব্য, ‘‘পূর্ণ সময়ের অর্থমন্ত্রী হিসেবেই জেটলি ব্যর্থ। সেখানে তাঁর উপরে রয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অতিরিক্ত দায়িত্ব! ফলে চিন্তা তো হচ্ছেই।’’



Tags:
India Pakistan Line Of Control Jammu Kashmir Firingজম্মু কাশ্মীরভারত পাকিস্তান

Advertisement