Advertisement
০৬ ডিসেম্বর ২০২২

দুর্নীতির অভিযোগে মধ্যরাতে আটক ‘বিদ্রোহী’ বিধায়ক

অর্থলগ্নি সংস্থার বহু কোটি টাকার দুর্নীতিতে অন্যতম অভিযুক্ত মহম্মদ মনসুর খান গত মাসে দাবি করেন, দুর্নীতিতে যুক্ত রয়েছেন রোশনও। পুলিশ সূত্রের খবর, গত কাল মধ্যরাতে রোশন একটি চার্টার্ড বিমানে করে বেঙ্গালুরু ছেড়ে যাচ্ছিলেন।

রোশন বেগ।

রোশন বেগ।

সংবাদ সংস্থা
বেঙ্গালুরু শেষ আপডেট: ১৭ জুলাই ২০১৯ ০১:৩৬
Share: Save:

কর্নাটকে রাজনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে গত কাল মধ্যরাতে অন্য নাটক! বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বেঙ্গালুরু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে কংগ্রেসের সাসপেন্ড হওয়া বিধায়ক রোশন বেগকে আটক করেছে বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট)। টুইটে মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামীর অভিযোগ, বিজেপির সহায়তায় পালানোর চেষ্টা করছিলেন রোশন।

Advertisement

অর্থলগ্নি সংস্থার বহু কোটি টাকার দুর্নীতিতে অন্যতম অভিযুক্ত মহম্মদ মনসুর খান গত মাসে দাবি করেন, দুর্নীতিতে যুক্ত রয়েছেন রোশনও। পুলিশ সূত্রের খবর, গত কাল মধ্যরাতে রোশন একটি চার্টার্ড বিমানে করে বেঙ্গালুরু ছেড়ে যাচ্ছিলেন। বিমানবন্দরে সিটের সদস্যেরা তাঁকে আটক করেন। তদন্তকারীদের একাংশের মতে, তিনি মুম্বইয়ে যাচ্ছিলেন ‘বিদ্রোহী’ বিধায়কদের সঙ্গে যোগ দিতে। কংগ্রেস শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করে গত মে মাসে দল থেকে সাসপেন্ড হয়েছেন রোশন।

ওই বিধায়ককে আটকের পরে কুমারস্বামীর টুইট, ‘‘বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার দুর্নীতির তদন্তে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রোশন বেগকে বেঙ্গালুরু বিমানবন্দরে আটক করেছে সিট। বি এস ইয়েদুরাপ্পার ব্যক্তিগত সচিব সন্তোষের সঙ্গে একটি ব্যক্তিগত বিমানে করে মুম্বইয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন তিনি। বেগ ধরা পড়ার সময়ে সন্তোষ পালিয়ে যান।’’ বিজেপির বিরুদ্ধে তাঁর সরকার ফেলে দেওয়ার চক্রান্তের অভিযোগ তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর টুইট, ‘‘ওই সময় বিজেপির বিধায়ক যোগেশ্বর হাজির ছিলেন। দুর্নীতিতে অভিযুক্ত প্রাক্তন মন্ত্রীকে পালাতে সাহায্য করছিল বিজেপি। ঘোড়া কেনাবেচা করে তারা সরকার ফেলতে চাইছে।’’

রোশন আগেই জানিয়েছিলেন, তিনি বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকারকে সমর্থন করতে প্রস্তুত। কর্নাটক বিজেপি বিবৃতিতে বলেছে, ‘‘হাজিরার জন্য রোশনকে ১৯ জুলাই পর্যন্ত সময় দিয়েছিল সিট। সরকার বাঁচাতে বিধায়কদের এ ভাবে ব্ল্যাকমেল করা হচ্ছে।’’ রোশনের সঙ্গে ইয়েদুরাপ্পার ব্যক্তিগত সচিব হাজির থাকার অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বিজেপির জবাব, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী অসত্য কথা বলে রাজ্যবাসীকে বিপথে চালিত করছেন। সিসিটিভি ফুটেজ দেখা হোক।’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.