×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ জুন ২০২১ ই-পেপার

দেশ

বিখ্যাত ব্যাঙ্কের কর্তা, একাধিক বিদেশি ডিগ্রি... ইনি তামিলনাড়ুর নতুন অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৮ মে ২০২১ ১৪:৫১
বড় ব্যবধানে তামিলনাড়ুতে জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন এমকে স্ট্যালিন। শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রীর শপথ নেন তিনি। নতুন মন্ত্রিসভায় তাঁর সঙ্গে আরও ৩২ জন মন্ত্রী শপথ নিয়েছেন।

মন্ত্রিসভার সেই তালিকায় নজর কাড়ছেন পলানিভেল থিয়াগরাজন।
Advertisement
বহুমুখী প্রতিভাবান তিনি। তাঁকেই এ বার রাজ্যের অর্থনীতির ভার তুলে দিয়েছেন স্ট্যালিন। কে এই পলানিভেল?

তামিলনাড়ুর অর্থ এবং মানবোন্নয়ন দফতরের দায়িত্ব রয়েছে তাঁর হাতে।
Advertisement
১৯৩৬ সাল মাদ্রাজ প্রেসিডেন্সির মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন পি টি রাজন। পি টি রাজনেরই বংশধর পলানিভেল। তাঁর বাবাও ছিলেন সক্রিয় রাজনীতিক।

একাধিক ডিগ্রি রয়েছে তাঁর। তিনি একদিকে যেমন ত্রিচির ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি থেকে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেছেন, তেমনই আবার অপারেশন রিসার্চের উপর তাঁর স্নাতকোত্তর ডিগ্রিও রয়েছে।

নিউ ইয়র্কের স্টেট ইউনিভার্সিটি থেকে হিউম্যান ফ্যাক্টরস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের উপর পিএইচডি করেছেন তিনি।

এখানেই শেষ নয়। স্লোয়ান স্কুল অব ম্যানেজমেন্ট থেকে বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের উপরও স্নাতকোত্তর তিনি।

তিনি একজন ইনভেস্টমেন্ট ব্যাঙ্কার। বেশ কয়েক বছর সিঙ্গাপুরে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাঙ্কের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ২০১৪ সালে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাঙ্কের ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদ থেকে অবসর নিয়ে দেশে ফেরেন।

২০১৪ সালে তাঁর রাজনীতিতে আসা। ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে মাদুরাই সেন্ট্রালের প্রার্থী হিসাবে লড়েছিলেন তিনি।

তাঁর স্ত্রী আমেরিকার নাগরিক। নাম মার্গারেট। স্বামীর জন্য ভোট চেয়ে লাগাতার প্রচার চালিয়ে গিয়েছেন তিনিও।

স্ত্রী মার্গারেট একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইঞ্জিনিয়ার। কিন্তু পলানিভেলের সঙ্গে বিয়ে হওয়ার পর তিনি চাকরি ছেড়ে দেন। ২০০৭ সাল থেকে তিনি ভারতে রয়েছেন। তাঁদের দুই ছেলে রয়েছে।

অতিমারি পরিস্থিতিতে তামিলনাড়ুর অর্থনৈতিক অবস্থা যে ভাবে শ্লথ হয়ে পড়েছে, সে দিক মাথায় রেখেই এমন একজনকে অর্থ দফতরের ভার দিয়েছেন স্ট্যালিন।

তিনি যখন অফিসে যোগ দিতে চলেছেন তখন তামিলনাড়ুর রাজকোষ তলানিতে। এমতাবস্থায় কী ভাবে রাজ্যের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ঘোরাতে পারেন তিনি, সেটাই তাঁর কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।

তালিকা অনুযায়ী তামিলনাড়ুর নতুন মন্ত্রিসভায় ৩২ জন শপথ নিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে যেমন বর্ষীয়ান রাজনৈতিক নেতা থাকছেন, তেমনই থাকছেন ১৫টি নতুন মুখ এবং ২ জন মহিলা।

যুবপ্রাণ, অভিজ্ঞতা, উচ্চশিক্ষা— একসঙ্গে এই তিনটির মিশেলেই গঠিত হয়েছে তামিলনাড়ুর নয়া মন্ত্রিসভা।