Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৫ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

চোর ফেরত দিল রাফালের নথি! মোদী সরকারকে কটাক্ষ কংগ্রেসের

বুধবারে ছিল চুরি যাওয়া ফাইল। শুক্রবারে সেটাই হয়ে গেল, ফোটোকপি করা নথি! বৃহস্পতিবার কি চোর রাফাল চুক্তির গোপন ফাইল ফেরত দিয়ে গেল? 

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ১০ মার্চ ২০১৯ ০৩:৩৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
নির্মলা সীতারামন

নির্মলা সীতারামন

Popup Close

বুধবারে ছিল চুরি যাওয়া ফাইল। শুক্রবারে সেটাই হয়ে গেল, ফোটোকপি করা নথি! বৃহস্পতিবার কি চোর রাফাল চুক্তির গোপন ফাইল ফেরত দিয়ে গেল?

‘রাফাল ফাইল চুরি’ নিয়ে প্রায় ৬০ ঘণ্টা পরে মুখ খুলে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে প্রশ্নের মুখে প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। প্রশ্ন উঠেছে, রাফাল চুক্তির গোপন ফাইল চুরি হলে তবেই অপরাধ? সেই ফাইলের গোপন নথির ফোটোকপি বাইরে বেরিয়ে গেলে নরেন্দ্র মোদী সরকারের সমস্যা নেই?

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের রাফাল চুক্তির ফাইল চুরি হয়েছে বলে বুধবার সকালে সুপ্রিম কোর্টে অভিযোগ তোলার পরে মোদী সরকারের অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল নিজেই শুক্রবার রাতে ডিগবাজি খেয়েছেন। বেণুগোপাল এখন বলছেন, চুরির কথা পুরোপুরি ভুল! আর তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে শনিবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী বললেন, ‘‘উনি আসলে সুপ্রিম কোর্টে বোঝাতে চেয়েছিলেন, আসল নথির ফোটোকপি করা হয়েছে। সেগুলো গোপন নথি।’’

Advertisement

কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরমের কটাক্ষ, ‘‘বুধবার যেটা ছিল চুরি যাওয়া নথি, শুক্রবার তা হয়ে গেল ফোটোকপি করা নথি! আমার মনে হয়, এর মধ্যে বৃহস্পতিবার চোর নথিগুলো ফেরত দিয়ে গিয়েছে!’’

এত দিন বিরোধীরা রাফাল যুদ্ধবিমানের দাম জানতে চাইলে মোদী সরকার গোপনীয়তাকে ঢাল করেছে। যুক্তি, গোপন তথ্য ফাঁস হয়ে গেলে রাফাল যুদ্ধবিমানে কী কী অস্ত্র, সরঞ্জাম রয়েছে, তা শত্রু-রাষ্ট্র জেনে ফেলবে। প্রশ্ন উঠেছে, সেই গোপন চুক্তির ফাইল চুরি হয়েছে না ফাঁস হয়েছে, তা নিয়ে সরকার বয়ান বদলাচ্ছে কেন?

বিরোধীরা প্রশ্ন তুলছেন এজি-র বয়ান বদল নিয়েও। প্রশ্ন উঠেছে, বিচারাধীন মামলায় সুপ্রিম কোর্টে এক কথা বলার পর তিনি কি আদালতের বাইরে অন্য কথা বলতে পারেন?

আরও পড়ুন: জঙ্গিরা যে ভাষা বোঝে, সেই ভাষাতেই তাদের জবাব দেওয়া গিয়েছে, বললেন মোদী

বুধবার অ্যাটর্নি জেনারেল রাফাল-ফাইল চুরির কথাই শুধু বলেননি, রাফাল তদন্ত ঠেকাতে তাঁর আর্জি ছিল, চুরি যাওয়া ফাইলকে যেন সুপ্রিম কোর্ট গুরুত্ব না দেয়। সরকারি সূত্রের বক্তব্য, চুরির কথা বলায় সরকারের বিপদ হতে পারে বুঝেই তাঁকে দিয়ে বয়ান বদলানো হয়েছে। কী সেই বিপদ?

রাফাল নিয়ে দর কষাকষিতে প্রধানমন্ত্রীর দফতরের নাক গলানো নিয়ে আপত্তি তোলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের আমলারা। ফেব্রুয়ারিতে সেই নথি সংবাদমাধ্যমে ফাঁস হয়। তখন সংসদ চলছিল। সেই নথি দেখিয়েই নতুন করে তদন্তের দাবি উঠেছে।

সরকারি সূত্রের বক্তব্য, এখন রাফাল ফাইল চুরির কথা বললে নানা অভিযোগ উঠবে। এক, প্রশ্ন উঠবে, সরকার কেন এত দিন চুরির কথা সংসদে জানায়নি? দুই, গোপন ফাইল চুরি গেলেও সরকার কেন এফআইআর করেনি? তিন, প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে তাঁর মন্ত্রক থেকে গোপন ফাইল চুরির দায় নিতে হবে। চার, ভবিষ্যতে ফের এ নিয়ে তদন্তের দাবি উঠবে। পাঁচ, খোদ সুপ্রিম কোর্টেই এ নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়তে হবে। বস্তুত ১৪ মার্চ রাফাল নিয়ে পরের শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টেও বেণুগোপালকে বয়ান বদলাতে হবে।

সরকারি সূত্রের ব্যাখ্যা, এই কারণেই বৃহস্পতিবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পরে অরুণ জেটলি রাফাল ফাইল চুরির কথা বলেননি। তিনি একে ‘ফাঁস হওয়া নথি’ বলেছিলেন।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement