Advertisement
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
National News

আগেও এমন গোপন অপারেশন চালিয়েছে ভারতীয় সেনা

বুধবার মধ্য রাতে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে সার্জিকাল স্ট্রাইক চালিয়েছে ভারতীয় সেনা। তবে এটাই সেনার প্রথম সার্জিকাল স্ট্রাইক নয়। জঙ্গি নিকেশ করতে এর আগেও একাধিক বার পাক অধিকৃত কাশ্মীরে এই ধরনের অপারেশন চালিয়েছে সেনা।

ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
শেষ আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ ১৭:১৪
Share: Save:

বুধবার মধ্য রাতে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে সার্জিকাল স্ট্রাইক চালিয়েছে ভারতীয় সেনা। তবে এটাই সেনার প্রথম সার্জিকাল স্ট্রাইক নয়। জঙ্গি নিকেশ করতে এর আগেও একাধিক বার পাক অধিকৃত কাশ্মীরে এই ধরনের অপারেশন চালিয়েছে সেনা। এইগুলো সব সার্জিকাল হলেও জঙ্গি নিধনে ভারতীয় সেনা আরও অনেক অপারেশন চালিয়েছে, যেগুলি প্রতিবেশী রাষ্ট্রের মাটিতে ঢুকে চালানো হলেও তা হয়েছে সেই দেশের সেনার সহায়তায়। কোথায় কোথায় সেনারা এ ধরনের অভিযান চালিয়েছে তা এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক।

Advertisement

পূর্ব পাকিস্তান: ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ যুদ্ধে সরকারি ভাবে জড়িয়ে পড়ার আগেই তত্কালীন পূর্ব পাকিস্তানের মাটিতে অ্যাকশনে নেমে পড়েছিল ভারতীয় সেনা।

Advertisement

কাশ্মীর: ‘ঘাতক পদাতিক বাহিনী’র সঙ্গে ইন্ডিয়ান স্পেশাল ফোর্স যৌথ ভাবে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর কৌশলী অভিযান চালিয়েছে বেশ কয়েক বার।

ভুটান: উত্তর-পূর্বের জঙ্গিগোষ্ঠী নিধনে ২০০৩-এ ভুটানে ঢুকে অপারেশন অল ক্লিয়ার নামে একটি অভিযান চালায় ভারতীয় সেনা। আলফা, এনডিএফবি এবং কেএলও জঙ্গিদের গোপন ডেরা গুড়িয়ে দেয় তারা। সেই সঙ্গে ৬৫০ জন জঙ্গিকে নিকেশ করে।

মায়ানমার (১৯৯৫): মায়ানমার-মিজোরাম সীমান্ত দিয়ে মণিপুরে এনএসসিএন, আলফা এবং কেএলও জঙ্গিদের গতিবিধি রুখতে ভারত এবং মায়ানমার সেনা যৌথ অভিযান চালায়।

মায়ানমার (২০০৬): এনএসসিএন জঙ্গিদের খতম করতে মায়ানামরে ঢুকে যৌথ অভিযান চালায় ভারতীয় সেনারা।

মায়ানমার (২০১৫): ভারতীয় সেনার ৭০ জন কম্যান্ডো মায়ানমারে ঢুকে ৩৮ জন নাগা জঙ্গিদের খতম করে। পুরো অপারেশনটা শেষ করে মাত্র ৪০ মিনিটে।

আরও খবর...

কারা এই স্পেশ্যাল ফোর্স, কী কায়দায় এত নিখুঁত হামলা?

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.