Advertisement
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
Rahul Gandhi

Rahul Gandhi: গোয়ায় ‘দুয়ারে রাহুল’! প্রার্থীদের নিয়ে ঘুরলেন ভোটারদের বাড়ি-বাড়ি, শুনলেন অভিযোগ

বাড়ির সামনে স্থানীয় কংগ্রেস প্রার্থী সঙ্কল্প আমনকরের সঙ্গে স্বয়ং রাহুল গান্ধীকে দেখে কিছুটা হকচকিয়ে গিয়েছিলেন পরিবারের লোকজন।

ভোটের প্রচার।

ভোটের প্রচার। পিটিআই।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ০৮:১৮
Share: Save:

দুয়ারে রাহুল!

বাড়ির সামনে স্থানীয় কংগ্রেস প্রার্থী সঙ্কল্প আমনকরের সঙ্গে স্বয়ং রাহুল গান্ধীকে দেখে কিছুটা হকচকিয়ে গিয়েছিলেন পরিবারের লোকজন। বিস্ময়ের ঘোর কাটতে না কাটতেই হাসিমুখে পরিবারের সদস্যদের দিকে তাকিয়ে রাহুলের প্রশ্ন, ‘‘গোয়ার জন্য কংগ্রেসের কাছ থেকে আপনাদের প্রত্যাশা কী?’’

এল জবাব। শুনলেন মন দিয়ে। তার পরে হাতজোড় করে নমস্কার করে এগিয়ে গেলেন সামনের দিকে।

মার্মাগাঁও বন্দর লাগোয়া এলাকায় এ দিন নিজের দলের প্রার্থী, রাজ্য কংগ্রেস সভাপতি গিরীশ চোরানকর-সহ রাজ্য কংগ্রেস নেতাদের কয়েক জনকে নিয়ে বাড়ি বাড়ি প্রচারের কাজ সারলেন রাহুল গান্ধী। স্থানীয় বাসিন্দা থেকে দোকানদার, ছোট ব্যবসায়ী, মৎস্যজীবী— আরও অনেকের সঙ্গেই কথা বলতে বলতে প্রচার চালালেন রাহুল গান্ধী। শুনলেন তাঁদের অভাব-অভিযোগ-প্রত্যাশার কথা। করোনা-সঙ্কটের সময় তাঁদের কী কী সমস্যা হয়েছে, কথা বললেন তা নিয়েও। নিজের দলের প্রার্থীকে দেখিয়ে অনেককেই প্রশ্নও ছুড়ে দিলেন, সমস্যায় পড়লে সঙ্কল্পের সাহায্য পেয়েছেন কি? তারই ফাঁকে কেউ বললেন বেকারত্বের কথা, কেউ অভিযোগ আনলেন স্থানীয় বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে। এক কিশোরী মার্মাগাঁও বন্দরের কয়লা দূষণ নিয়েও নালিশ করল রাহুলের কাছে। হাসিমুখেই সকলের কথা শুনলেন তিনি।

মাত্র এক দিনের সফরে গোয়ায় এসেছেন রাহুল। ২ ফেব্রুয়ারি তাঁর এই সফর নির্ধারিত থাকলেও সংসদের কাজের জন্য আসতে পারেননি কংগ্রেস নেতা। সে দিন সংসদে নরেন্দ্র মোদীর দল ও সরকারকে তুলোধনা করে বিরোধী শিবিরের পাশাপাশি বহু সমালোচকেরও প্রশংসা কুড়িয়েছেন রাহুল। তার পরে এক দিন বাদ দিয়েই গোয়ায় গিয়ে মার্মাগাঁওয়ের কংগ্রেস প্রার্থীর হয়ে তাঁর এই বাড়ি বাড়ি প্রচারের অভিনব কৌশলে বেশ চাঙ্গা স্থানীয় কংগ্রেস শিবির।

গত বিধানসভা নির্বাচনে গোয়ায় একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হলেও সরকার গড়তে পারেনি কংগ্রেস। কংগ্রেস বিধায়কদের অনেকেই বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় সরকার গড়ে নরেন্দ্র মোদীর দল। এ বার তাই আগেভাগে দলের প্রার্থীদের দিয়ে শপথবাক্য পাঠ করিয়েছে কংগ্রেস। যা নিয়ে বিস্তর কটাক্ষ করছে বিরোধীরা। এ বারের নির্বাচনে বিজেপির পাশাপাশি কংগ্রেসের প্রতিপক্ষ হিসেবে রয়েছে তৃণমূল-এমজিপি জোট এবং অরবিন্দ কেজরীওয়ালের আম আদমি পার্টি।

তৃণমূল এ রাজ্যে পা রাখার পর থেকে কংগ্রেসের একাধিক ছোট-বড় নেতা তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। যদিও তাঁদের মধ্যে কয়েক জন আবার কংগ্রেসে ফিরেও এসেছেন। তৃণমূলের তরফে সম্প্রতি একাধিক বার কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের প্রস্তাব দেওয়া হলেও কংগ্রেস নেতৃত্ব সে পথে হাঁটেননি। নিজেদের শক্তিতেই ফের গোয়া দখলের অঙ্ক কষছে সনিয়া গান্ধীর দল। তারই অঙ্গ হিসেবে রাহুলের এই সফর।

শুক্রবারের সফরে মার্মাগাঁওয়ে প্রচার ছাড়াও বিজেপি নেতা তথা মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ন্তের বিধানসভা কেন্দ্র সাখালিতে একটি সভা করেন রাহুল। সেখানেই দলের নির্বাচনী ইস্তাহারও প্রকাশ করেন তিনি। সভায় রাহুল আশ্বাস দেন, কংগ্রেস ক্ষমতায় ফিরলে কর্মসংস্থানে জোর দেওয়া হবে। সেই সঙ্গেই পর্যটন, মৎস্যজীবীদের সমস্যা-সহ একাধিক ক্ষেত্রে জোর দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.