×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

১৪ ডিসেম্বর থেকে আরটিজিএস-এ ফান্ড ট্রান্সফার হবে ২৪ ঘণ্টাই, জানাল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি০৪ ডিসেম্বর ২০২০ ২১:১৫
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

ডিজিটাল লেনদেনে আরও গতি আনতে এ বার বছরের সব দিনেই আরটিজিএস-এর মাধ্যমে ফান্ড ট্রান্সফারের সুবিধা পাওয়া যাবে। শুক্রবার এই ঘোষণা করেছেন রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া (আরবিআই)-র গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। তিনি জানিয়েছেন, আগামী ১৪ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১২টা থেকে এই ব্যবস্থা (রিয়েল টাইম গ্রস সেটলমেন্ট বা আরটিজিএস) চালু হবে।

ডিসেম্বরেই আরটিজিএস ব্যবস্থা শুরু করা হবে বলে এক মাস আগেই জানিয়েছিল আরবিআই। শুক্রবার একটি বিবৃতি দিয়ে ওই পরিষেবা চালুর দিন ঘোষণা করেন শক্তিকান্ত। তিনি জানিয়েছেন, এই প্রযুক্তির সাহায্যে বছরের প্রতিটি দিন অর্থাৎ ২৪X৭-ই তহবিল হস্তান্তর করা যাবে।

যদিও এই ব্যবস্থার মাধ্যমে কেবলমাত্র বড়সড় অঙ্কের অর্থই হস্তান্তর করা যাবে। ন্যূনতম ২ লক্ষ টাকা থেকে শুরু করে যে কোনও পরিমাণ অর্থই গ্রহীতার ব্যাঙ্কে পাঠানো যাবে বলে জানিয়েছেন শক্তিকান্ত। আরটিজিএস-এর মাধ্যমে ফান্ড ট্রান্সফারে কোনও ঊর্ধ্বসীমা নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: দিল্লিতে কৃষকদের সঙ্গে ফোনে কথা মমতার, দিলেন পাশে থাকার বার্তা

আরও পড়ুন: ফ্রান্সে বিজয় মাল্যর ১৪ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত

Advertisement

ইতিমধ্যেই বছরভর ফান্ড ট্রান্সফারের জন্য এনইএফটি বা ন্যাশনাল ইলেকট্রনিক ফান্ডস ট্রান্সফার ব্যবস্থা চালু রয়েছে। এ বার এর সঙ্গে যুক্ত হল আরটিজিএস-ও। এই মুহূর্তে আরটিজিএস-এর মাধ্যমে সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত এই পরিষেবা চালু থাকে। পাশাপাশি, মাসের দ্বিতীয় এবং চতুর্থ শনিবার এটি বন্ধ থাকে। শুক্রবার শক্তিকান্ত বলেন, “আরটিজিএস চালু হওয়ার পর এইপিএস, আইএমপিএস, এনইটিএস এনএফএস, রুপে বা ইউপিআইয়ের মাধ্যমে লেনদেনেও সুবিধা হবে। সপ্তাহের সব দিনেই লেনদেন হওয়ার ফলে ওই সিস্টেমগুলিতে কমবে। ফলে লেনদেনের কার্যকারিতা আরও বাড়বে।”

আরবিআইয়ের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, গ্রাহক এবং দু’টি ব্যাঙ্কের লেনদেন সব সময় চালু থাকলেও এই প্রক্রিয়ায় ‘দিনের শেষে এবং শুরুতে’ কিছু ক্ষণের বিরতি থাকবে। আরটিজিএ-র মাধ্যমেই ওই সময়সীমা জানতে পারবেন গ্রাহক।

দ্রুত গতির তাৎক্ষণিক লেনদেনের এই পরিষেবায় গ্রাহক টাকা হস্তান্তর করার ২ ঘণ্টার মধ্যেই তা তুলে নিতে পারবেন গ্রহীতা বা ব্যাঙ্ক। আরবিআই জানিয়েছে, এই পরিষেবার মাধ্যমে বেশি পরিমাণ অর্থের লেনদেনের কথা মাথায় রেখে গ্রাহকের সুরক্ষাও জোরদার করা হয়েছে। বিশাল অঙ্কের টাকা হস্তান্তর করার সময় যে অ্যাকাউন্ট থেকে তা পাঠানো হবে, তার নম্বরের পাশাপাশি গ্রহীতা ও ব্যাঙ্কের নাম, অ্যাকাউন্ট নম্বর দিতে হবে। সেই সঙ্গে যে ব্য়াঙ্কে তা পাঠানো হচ্ছে, তার আইএফএসসি কোডও জানাতে হবে কাস্টমারকে।

Advertisement