×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৬ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

পাকিস্তানের সুরে কথা বলছে কিছু দল, সিএবি নিয়ে বিরোধীদের নিশানা করলেন প্রধানমন্ত্রী

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি১১ ডিসেম্বর ২০১৯ ২১:০২
সিএবি নিয়ে বিরোধীদের নিশানা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। —ফাইল চিত্র

সিএবি নিয়ে বিরোধীদের নিশানা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। —ফাইল চিত্র

লোকসভায় সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিল (সিএবি) বা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে প্রায় সাত ঘণ্টার দীর্ঘ আলোচনা পর্বে তিনি ছিলেন অনুপস্থিত। কিন্তু রাজ্যসভায় বিল পেশের সূচনাপর্বেই বিরোধীদের এক হাত নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

৩৭০ অনুচ্ছেদ রদ পর্বে পাকিস্তানকে জড়িয়ে যে অভিযোগ তুলেছিলেন, সেই অভিযোগেই বিঁধলেন বিরোধীদের। বললেন, ‘কিছু কিছু দল পাকিস্তানের সুরে’ কথা বলছেন। স্বাভাবিক ভাবেই মোদীর মূল নিশানা কংগ্রেস। পাশাপাশি বিলের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করে শরনার্থীদের আশ্বস্ত করারও চেষ্টা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

সিএবি নিয়ে পাকিস্তানের অবস্থান কী? মঙ্গলবারই বিলের সমালোচনা করে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছিলেন, এই বিল আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের পরিপন্থী। তা ছাড়া ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক চুক্তিও লঙ্ঘিত হয়েছে সিএবি-তে। কংগ্রেসের বক্তব্য, এই বিল বৈষম্যমূলক এবং সংবিধানের সমানাধিকার ও ধর্মনিরপেক্ষতার বিরোধী। ২০১৫ সালের আগে পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আসা মুসলমানদেরও নাগরিকত্ব দেওয়ার দাবিও তুলেছে কংগ্রেস।

Advertisement

আরও পড়ুন: গুজরাত দাঙ্গায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ক্লিন চিট, নানাবতী কমিশনের রিপোর্ট পেশ বিধানসভায়

এই প্রেক্ষাপটেই আজ রাজ্যসভায় পেশ হয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। তার আগে উচ্চকক্ষের রণকৌশল ঠিক করতে বৈঠকে বসে বিজেপির সংসদীয় দল। সেই বৈঠকেই নরেন্দ্র মোদী বলেন, ‘‘কিছু দল এমন ভাষা ব্যবহার করছে, ঠিক যে ভাষায় পাকিস্তান কথা বলে।’’ তিনি আরও বলেন, সিটিজেনশিপ (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল ইতিহাসে স্বর্নাক্ষরে লেখা থাকবে। ধর্মীয় কারণে অত্যাচারিত হয়ে শরণার্থী হয়ে যাঁরা এ দেশে আশ্রয় নিয়েছেন, তাঁদের স্থায়ী স্বস্তি দেবে। সিএবি যে আনন্দ ও স্বস্তি নিয়ে আসবে, তা পরিমাপের অযোগ্য।’’

আরও পডু়ন: মুসলিমদের ভয় পাওয়ার কিছু নেই: অমিত || এই বিল বাংলা তথা ভারত বিরোধী: ডেরেক

Advertisement