Advertisement
২৫ জুন ২০২৪

হাইকোর্ট টপকে এখানে কেন? কানহাইয়ার আর্জি শুনলই না সুপ্রিম কোর্ট

কানহাইয়া কুমারের জামিনের আবেদন শুনলই না সুপ্রিম কোর্ট। বৃহস্পতিবার জামিনের আবেদন নিয়ে দেশের শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন কানহাইয়া কুমারের দুই কৌঁসুলি রাজু রামচন্দ্রন ও সোলি সোরাবজি।

সংবাদ সংস্থা
শেষ আপডেট: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ ১১:৫৪
Share: Save:

কানহাইয়া কুমারের জামিনের আবেদন শুনল না সুপ্রিম কোর্ট। বৃহস্পতিবার জামিনের আবেদন নিয়ে দেশের শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন কানহাইয়া কুমারের দুই কৌঁসুলি রাজু রামচন্দ্রন ও সোলি সোরাবজি। কিন্তু শুক্রবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছে, জেএনইউ ছাত্র সংসদ অধ্যক্ষের আবেদনের শুনানি সুপ্রিম কোর্টে হবে না। আগে হাই কোর্টে জামিনের আবেদন জানাতে হবে। তবে কানহাইয়া কুমারের গ্রেফতারি মামলাকে ঘিরে যে নজিরবিহীন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে সুপ্রিম কোর্ট সে কথা মেনে নিয়েছে। হাইকোর্টে জামিনের আবেদনের শুনানি হলে কানহাইয়ার কৌঁসুলিদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে দিল্লি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

আরও পড়ুন:

চোখে চোখ রেখেই ক্ষান্ত দু’পক্ষ, স্বস্তি যাদবপুরে

পাতিয়ালা হাউজ কোর্টে কানহাইয়া কুমারকে পেশ করা নিয়ে পর পর দু’দিন যে হিংসাত্মক ঘটনা ঘটেছে, তার প্রেক্ষিতেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন ছাত্র নেতার আইনজীবীরা। আবেদনে তাঁরা বলেন, কানহাইয়া কুমারের মামলাকে ঘিরে নজিরবিহীন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সে কথা মাথায় রেখে কানহাইয়ার জামিনের আবেদনের শুনানি সুপ্রিম কোর্টেই হোক। কানহাইয়া কুমারের সেই আবেদন সুপ্রিম কোর্ট গ্রহণ করতে রাজি হয়নি। এ দিন দুপুরে দেশের শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, মামলা এখন যে পর্যায়ে রয়েছে, তাতে কানহাইয়া কুমারের জামিনের আবেদনের শুনানির জন্য সুপ্রিম কোর্ট উপযুক্ত মঞ্চ নয়। জেএনইউ ছাত্র সংসদের অধ্যক্ষের আইনজীবীদের সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে, দিল্লি হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করতে। পাতিয়ালা হাউজ কোর্টে কানহাইয়াকে পেশ করার সময় পর পর দু’দিন যে হিংসাত্মক ঘটনা ঘটেছে, তা যে নজিরবিহীন, সে কথা সুপ্রিম কোর্ট মেনে নিয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার এবং দিল্লি পুলিশকে তার প্রেক্ষিতে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশ, দিল্লি হাইকোর্টে কানহাইয়ার আইনজীবীদের জন্য যেন পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়।

পাতিয়ালা হাউজ কোর্ট ১৪ দিনের জেল হেফাজতে পাঠানোর পর কানহাইয়াকে তিহার জেলে রাখা হয়েছে। আইনজীবীরা সেখানে অন্য আবাসিকদের হাতে কানহাইয়ার আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করায়, ছাত্র নেতাকে সিসিটিভি নজরদারিতে রাখা হয়েছে। তবে পাতিয়ালা হাউজ কোর্টে বুধবার কানহাইয়া কুমার যে আইনজীবীদের হাতে আক্রান্ত হন, তাঁদের বিরুদ্ধে দিল্লি পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। কানহাইয়া কুমারের কৌঁসুলিদের দাবি, ছাত্র নেতার উপর হামলায় অভিযুক্ত আইনজীবীদের বিরুদ্ধে দিল্লি পুলিশ এফআইআর রুজু করতে চাইছে না।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE