Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ জুন ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Sudip Roy Burman: বিজেপির টিকিটে লড়ব না: সুদীপ

আগামী ভোটে তবে কোন দলের হয়ে লড়বেন সুদীপ? এ বিষয়ে নিজে কিছু বলতে রাজি হননি তিনি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
আগরতলা ১৪ জানুয়ারি ২০২২ ০৯:২৬
Save
Something isn't right! Please refresh.
সুদীপ রায়বর্মণ। ফাইল চিত্র।

সুদীপ রায়বর্মণ। ফাইল চিত্র।

Popup Close

দলের বিক্ষুব্ধ বিধায়ক সুদীপ রায়বর্মণকে ২০২৩-এর ভোটে সম্ভবত টিকিট দেবে না বিজেপি। এই জল্পনার পাল্টা হিসাবে, সুদীপ নিজেই আগামী ভোটে বিজেপির হয়ে লড়বেন না বলে জানিয়ে দিলেন আজ। ঘোষণা করলেন, কিছু দিনের মধ্যে রাজ্যের বড় ধরনের কিছু দুর্নীতি ও কেলেঙ্কারি ফাঁস করবেন। তাঁর দাবি, ত্রিপুরায় রাজনৈতিক সমীকরণ খুব দ্রুত পাল্টাবে। আগামী এক মাসের মধ্যে রাজ্য রাজনীতি নয়া মোড় নেবে।

আগামী ভোটে তবে কোন দলের হয়ে লড়বেন সুদীপ? এ বিষয়ে নিজে কিছু বলতে রাজি হননি এ দিন। আর বিজেপির প্রধান মুখপাত্র সুব্রত চক্রবর্তীর বক্তব্য, সুদীপ কোন দলের হয়ে লড়বেন, সেই সিদ্ধান্ত তাঁকেই নিতে হবে। সুব্রতর কথায়, “নিজের রাজনীতির ভবিষ্যৎ ওঁকেই ঠিক করতে হবে। এই বিষয়ে আমাদের আগ বাড়িয়ে কিছু বলার নেই।”

বুধবার দক্ষিণ জেলার সাব্রুমে রক্তদান শিবির নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনার সম্মুখীন হতে হয় সুদীপ এবং বিধায়ক আশিসকুমার সাহাকে। স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন উপলক্ষ্যে সাব্রুম কলেজে ওই রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল। তাতে আমন্ত্রিত হয়ে গিয়েছিলেন সুদীপ এবং আশিস। সুদীপের অভিযোগ, তাঁদের আমন্ত্রণ জানানোর কারণেই রক্তদানের মতো অনুষ্ঠানও বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। এই কর্মসূচিতে যোগ দেওয়ায় অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের (এভিবিপি) নেতা অভিজিৎ দেবকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাঁকে আগরতলায় গোবিন্দবল্লভ পন্থ হাসপাতালে আনা হয়েছিল। আজ সকালে তিনি সুদীপের সঙ্গে দেখা করতে তাঁর বিধায়ক আবাসে যান। অভিজিৎ জানিয়েছেন, গত কাল বিজেপির মনুবাজার বুথ প্রেসিডেন্ট-সহ অন্যরা সুদীপ এবং আশিসকে কেন আমন্ত্রণ করা হয়েছে, সেই কৈফিয়ত চান। তার পরেই সবাই মিলে তাঁকে মাথায় মেরেছে।

Advertisement

ক্ষুব্ধ প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুদীপ বলেন, “রাজ্যের প্রতিটি হাসপাতালে রক্তের সঙ্কট রয়েছে। রক্তদান ভেস্তে দিয়ে সাধারণ মানুষকেই বিপন্ন করা হচ্ছে। কলেজের পড়ুয়ারা রক্তদানের আয়োজন করেছিল। এতে কত মুমূর্ষ রোগীর প্রাণ বেঁচে যেত! রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হলে আমরা রাজনৈতিক ভেদাভেদ না মেনেই অংশ নিয়ে থাকি।”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement