কাশ্মীর ইস্যুতে আরও আক্রমণাত্মক পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এ নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে কার্যত যুদ্ধের হুমকি দিলেন ইমরান। তাঁর দাবি, পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারত কোনও রকমের বিধিভঙ্গ করলে নিজেদের স্বার্থেই যুদ্ধের ময়দানে যেতে প্রস্তুত পাক সেনাবাহিনী। তবে ঠিক কোন বিধিভঙ্গের কথা তিনি বলছেন, তা স্পষ্ট উল্লেখ করেননি ইমরান।

বুধবার পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বিধানসভায় নিজের ভাষণে কাশ্মীর প্রসঙ্গ টেনে আনেন পাক প্রধানমন্ত্রী। এই ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মঞ্চে তিনি সরব হবেন বলেও জানিয়েছেন। পাশাপাশি, কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জ বা আন্তর্জাতিক মঞ্চ বিশেষ উদ্যোগী নয় বলেও আক্ষেপ করেছেন ইমরান। তিনি জানিয়েছেন, কাশ্মীর ইস্যু বিশ্বমঞ্চে তুলে ধরতে এ বার তিনি নিজেই উদ্যোগী হবেন। তাঁর কথায়, ‘‘বিশ্ব জুড়ে আমাদের সমস্ত রাষ্ট্রদূত এ বিষয়ে সক্রিয়। কাশ্মীরের স্বার্থে বিশ্বের দরবারে আমি নিজে রাষ্ট্রদূতের ভূমিকা পালন করব। এবং প্রতিটি আন্তর্জাতিক ফোরামে এই ইস্যুটি উত্থাপন করব।’’

৩৭০ অনুচ্ছেদ রদ করে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বিলোপ করার পর এবং রাজ্যের বিভাজনের পর নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান। ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার অজয় বিসারিয়াকে বহিষ্কার করা ছাড়াও ভারতের সঙ্গে কূটনাতিক সম্পর্কও ছিন্ন করেছে পাকিস্তান।

আরও পড়ুন: ‘ভারত যেন আমাদের সংযমকে দুর্বলতা না ভাবে’, নিরাপত্তা পরিষদে চিঠি দিল পাকিস্তান

আরও পড়ুন: ভারত-চিনকে আর উন্নয়নশীল দেশের সুবিধা পেতে দেব না, ডব্লিউটিও-কে তোপ ট্রাম্পের

কাশ্মীর ইস্যুতে বিশ্বমঞ্চে এ বার ভারতকে চাপে ফেলতে আরও উদ্যোগী পাক সরকার। কাশ্মীর নিয়ে বিশ্বমঞ্চ তেমন সক্রিয় নয় বলেও অভিযোগ করেছেন ইমরান। এ দিন তিনি বলেন, ‘‘যদি এই অঞ্চলটি (কাশ্মীর) যুদ্ধ শুরু করে, তবে তার জন্য গোটা বিশ্বই দায়ী থাকবে। যে সমস্ত প্রতিষ্ঠান বিশ্বশান্তি রক্ষার্থে কাজ করে, তারাও দায়ী থাকবে। এটা রাষ্ট্রপুঞ্জের কাছে একটা পরীক্ষা।’’