ওয়াশিংটন, ১৬ এপ্রিল: দাউদাউ করে জ্বলছে নোত্র দাম। নিজের এয়ার ফোর্স ওয়ান বিমানে বসে টেলিভিশনে সে দৃশ্য ‘লাইভ’ দেখছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। চোখের সামনে ভাঙতে শুরু করল মিনারের ধাতব চূড়া। দমকলকর্মীরা প্রাণপণ চেষ্টা চালাচ্ছেন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার। আর সংযত থাকতে পারলেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট। টুইটারে ধেয়ে এল তাঁর ‘উপদেশ’। আগুন নেভাতে ‘ফ্লাইং ওয়াটার ট্যাঙ্কার’ বা কপ্টার থেকে জল ছেটানোর পরামর্শ দিলেন তিনি।

আমেরিকায় দাবানল নেভানোর জন্য সাধারণত হেলিকপ্টার থেকে জল বা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে এমন রাসায়নিক ছেটানো হয়। অনেকে মনে করছেন, নোত্র দামেও এই পদ্ধতিই অনুসরণের কথা বলেছেন প্রেসিডেন্ট। টুইটে তাঁর নিদান, ‘‘বিমান থেকে জল ফেলে এই আগুন নেভানো যায় না? যাই করুক তাড়াতাড়ি করতে হবে কিন্তু।’’ ট্রাম্পের এই উপদেশ যদিও বিনয়ের সঙ্গে প্রত্যাখ্যান করেছে ফরাসি অসামরিক নিরাপত্তা বিভাগ। সাফ জানিয়েছে, সব রকম চেষ্টাই করে দেখা হচ্ছে। তবে বিমান থেকে জল ছোড়ার পদ্ধতিটা এ ক্ষেত্রে কাজে লাগবে না। ফরাসি অভ্যন্তরীণ মন্ত্রকের অধীনস্থ বিভাগটির টুইট, ‘‘জলের যা ওজন এবং অত উঁচু থেকে ছোড়ার ফলে যে গতিতে নীচে পড়বে, তাতে প্রাচীন গির্জার কাঠামো ধসে পড়বে। হেলিকপ্টার বা বিমান যা-ই ব্যবহার করা হোক না কেন। এতে আশপাশের অংশগুলিও ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’’ বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, উপর থেকে জল ছুড়লে শুধু কাঠামোর ক্ষতিই নয়, ক্যাথিড্রালের আশপাশেও এক বা একাধিক মানুষ আহত হতে পারতেন। যে কারণে শহর বা জনবসতি এলাকায় এই পদ্ধতি প্রয়োগ করা যায় না। 

এ দিন মিনেসোটার এক বৈঠকেও নোত্র দাম প্রসঙ্গ টেনে আনেন ট্রাম্প। বলেন, ‘‘এ রকম ভয়ঙ্কর আগুন সচরাচর দেখা যায়। ওঁরা জানেন না, কেন আগুন লেগেছে। বলছেন, সংস্কারের কাজ চলছিল। আশা করি এটাই কারণ।’’ প্রেসিডেন্ট মাকরঁকে অবশ্য সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। ট্রাম্পের খানিক বাদে টুইট করে শোকপ্রকাশ করেন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়াও। তাঁর টুইট, ‘‘প্যারিসের মানুষের জন্য হৃদয় ভেঙে যাচ্ছে। সকলের সুরক্ষার জন্য প্রার্থনা করছি।’’ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রেসিডেন্ট মাকরঁকে চিঠি লিখে শোকপ্রকাশ করেছেন। 

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের সমর্থকেরা অবশ্য গুড ফ্রাইডের আগে এই বিপর্যয়ে উল্লাস প্রকাশ করেছে। জ্বলন্ত ক্যাথিড্রালের ছবি দিয়ে পোস্টার বানিয়ে তার উপর লিখে দিয়েছে— ‘অনুশোচনা ও শাস্তির সময় আসন্ন। দিনটা ভাল কাটুক।’