ভারত থেকে ‘বিষ’ মাখানো খামে চিঠি পাঠানোর অভিযোগ উঠল গ্রিসের ১২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধানের কাছে। কয়েকটি চিঠির উপর ইংরেজিতে ইসলাম সম্পর্কিত বিষয়ের উল্লেখ ছিল বলে জানিয়েছেন গ্রিসের এক পুলিশ আধিকারিক। ঘটনাটির সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের যোগ রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার তদন্ত শুরু করেছে গ্রিসের সন্ত্রাসদমন শাখা।

খামের উপর যে পদার্থ মিলেছে, তা মূলত আঠা বা ছাপার কালি তৈরিতে ব্যবহার করা হয় বলে জানিয়েছে ‘দ্য জেনারেল সেক্রেটারিয়েট ফর সিভিল প্রোটেকশন’। বুধবার থেকে চিঠিগুলি আসতে শুরু করেছে।

বুধবার লেসবস দ্বীপের এজিয়ন বিশ্ববিদ্যালয়ে খামে লেগে থাকা একটি ‘গুঁড়ো পদার্থ’র সংস্পর্শে এসে অসুস্থ হয়ে পড়েন বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক জন কর্মী। তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। ক্রিটের এক বিশ্ববিদ্যালয়ের রেক্টরের কাছে চিঠিটি এলে তিনি তা খুলে দেখেন। ভিতরে ইসলাম সংক্রান্ত কাগজ উদ্ধার হয়।