• লন্ডন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বাকিংহাম প্রাসাদে হ্যারি, তবে প্রশ্নে নীরব 

Prince Harry
রাজকুমার হ্যারি ও মেগান। —ফাইল চিত্র

‘সিনিয়র রয়্যাল’ হিসেবে সরে দাঁড়ানোর পরে আজ প্রথম প্রকাশ্যে দেখা গেল ব্রিটেনের রাজকুমার হ্যারিকে। কিন্তু এই সংক্রান্ত কোনও প্রশ্নের উত্তর দেননি তিনি। ২০২১ সালের রাগবি লিগ বিশ্বকাপের সূচনা করতে বাকিংহাম প্রাসাদে আসেন ডিউক অব সাসেক্স। সাধারণত রানি দ্বিতীয় এলিজ়াবেথের লনেই এই খেলা হয়। খুদেদের ভিড়ে বেশ হাসিখুশিই ছিলেন। হ্যারি বরাবরই রাগবি ফুটবল লিগের পৃষ্ঠপোষক। 

তবে প্রাসাদে পৌঁছনোর আগে গাড়িতে গম্ভীর মুখেই বসেছিলেন তিনি। তার কিছু ঘণ্টা আগে অনলাইনে মানসিক স্বাস্থ্য সংক্রান্ত একটি ভিডিয়ো প্রকাশ করেন। যাতে অবসাদে ভুগতে থাকা পুরুষদের উদ্দেশে হ্যারির বার্তা, ‘‘কষ্ট চেপে হাসি দেখানো বন্ধ করুন।’’ সেখানে নানা সমস্যা নিয়ে আলোচনাও করেন তিনি। তবে প্রাসাদে পৌঁছে প্রথম দিকে বেশ কঠিন মুখেই দেখা যায় তাঁকে। জুতো পরে মাঠে নামার পরে কচিকাঁচাদের মধ্যে এসে সহজ হয়ে যান রাজকুমার। তাদের একের পর এক প্রশ্নে হাসি চওড়া হতে থাকে তাঁর। 

তার পরে যখন সেখানে হাজির সংবাদমাধ্যম ঘিরে ধরে হ্যারিকে, এবং রানি, যুবরাজ চার্লস, দাদা উইলিয়াম সম্পর্কে প্রশ্নবাণ ছুড়তে থাকে, তখন ফের বদলায় ছবিটা। একটি প্রশ্নেরও উত্তর না দিয়ে প্রাসাদের দিকে ফিরে যান হ্যারি। রানিকে তাঁদের সিদ্ধান্ত জানানোর পর থেকে এক রকম ‘লো প্রোফাইল’ রাখারই চেষ্টা করছেন হ্যারি। উইনসরের ফ্রগমোর কটেজ ছেড়ে বেরোচ্ছেন না।  এ দিন রাগবির জন্য হাজির হয়ে রাজপরিবারের সদস্য হিসেবে শেষ ‘দায়িত্ব’ পালন করলেন প্রাক্তন যুবরানির ডায়ানার ছোট ছেলে। 

হ্যারির মতো গত কাল প্রকাশ্যে দেখা গিয়েছে মেগানকেও। কানাডার ভ্যাঙ্কুভারে একটি সি-প্লেনে উঠতে দেখা যায় তাঁকে। রানি ইতিমধ্যেই তাঁর বিবৃতিতে জানান, হ্যারি-মেগান ‘স্বাধীন পরিবারের’ মতো থাকতে পারেন। আপাতত আগামী সপ্তাহের গোড়া পর্যন্ত লন্ডনে থাকার কথা হ্যারির।তার পরেই ছেলে আর্চি ও স্ত্রী মেগানের কাছে কানাডায় ফিরে যাবেন তিনি।                       

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন