ছোট্ট একটা খরগোশ। পরনে পুলিশের পোশাক, হাতে হাতকড়া ধরে রয়েছে। রয়েছে নিজস্ব ব্যাজ। পুলিশ নাকি বলছে, এই ‘নিউ রিক্রুট’ সাহায্য করবে বদ্ধ জায়গায় ছোটখাটো জিনিস খুঁজে দিতে। একে ‘পোলিশ র‌্যাবিট হ্যান্ডলার’-ও বলা হয়েছে।

তা হলে কি জুটোপিয়া এ বার বাস্তবে?

জুটোপিয়া সিনেমার কথা মনে আছে নিশ্চয়ই। বানিবারোর বাসিন্দা খরগোশ জুডি হপসের স্বপ্ন ছিল জুটোপিয়ার পুলিশ অফিসার হওয়া। যেমন খুশি তেমন ভাবে চলে সে। কিন্তু তার মা বনি ও বাবা স্টু মেয়েকে অন্য কিছু বানাতে চেষ্টা চালিয়ে যেতেন। কিন্তু হপস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল।

 

 

 

না, ঠিক তা নয়। দক্ষিণ পশ্চিম ইংল্যান্ডের সারে পুলিশ শেয়ার করেছে এই ‘অ্যাডরেবল বানি’-র ছবি। ফেসবুকের এডেনব্রিজ ও অক্সটেড এগ্রিকালচারাল শো-তে পোস্ট হয়েছে এই ছবি।

আরও পড়ুন: মাছকে সতেজ দেখাতে নকল পাথরের চোখ!

এই ছবি দেখে রীতিমতো উত্তেজিত হয়ে পড়েন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা। তা হলে এ বার থেকে কী স্নিফার ডগের মতো খরগোশও পুলিশ বিভাগে জায়গা করে নিতে চলেছে? ভাইরাল হয়ে পড়ে পোস্টটি।

আরও খবর: এই ছবি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড়, শেষটা জানলে আপনি চমকে যাবেন!

সব্বাই জিজ্ঞাসা করতে থাকেন, পুলিশ বিভাগ কবে এই সিদ্ধান্ত নিল, কবেই বা দেখা যাবে খরগোশটিকে। অবশেষে বাধ্য হয়েই সারে পুলিশের তরফে বলা হয়, এই প্রাণীটি নিতান্তই একজন ভিজিটর ছিল তাদের অফিসে। এটা একেবারে ঠাট্টা। এরপরেও খরগোশটিকে পুলিশ বিভাগে নিয়োগ করা হলে কেমন লাগতে পারে। তা নিয়ে মজাদার পোস্ট করতে থাকেন অনেকেই।

 

(সারা বিশ্বের সেরা সব খবর বাংলায় পড়তে চোখ রাখতে পড়ুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগে।)