Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

সম্পর্ক উপহার আর উষ্ণতায় ভাইফোঁটার সেলিব্রেশন

রেশমী প্রামাণিক
২০ অক্টোবর ২০১৭ ১৭:০৪
ছবি: ক্যাফে কবীরা।

ছবি: ক্যাফে কবীরা।

ভাইফোঁটা মানেই পুজোর ছুটির শেষ পর্যায়। পরশু থেকে আবার শুরু পড়াশোনা। তার আগে ভাইবোনেদের সঙ্গে যতটা খুশি মজা করে নেওয়া। আর উপরি পাওনা হিসেবে বাজি পোড়ানো থেকে শুরু করে পেট পুরে খাওয়া— এ সব কিছু তো আছেই। তবে নিউক্লিয়ার ফ্যামিলি হওয়ার সুবাদে এখন তুতো ভাইবোনে কিঞ্চিৎ টান পড়েছে। তাই ভাইফোঁটার সেই হল্লাটাও আজ খানিক ফিকে। এ ছাড়াও এই সময়ে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানে ছুটি থাকে বলে অনেকেই বেড়াতে বেরিয়ে পড়েন। এত কিছুর মধ্যেও কিন্তু উপহারে কোনও ফাঁকি নেই। উভয়পক্ষই ভাইফোঁটার উপহার হাতছাড়া করতে রাজি নন।

Advertisement



ক্যাফে কবীরা

সেই আদ্যি কাল থেকে ভাইফোঁটায় বোনের বাড়ি আসা মানেই দাদার হাতে মিষ্টির হাঁড়ি আর নতুন শাড়ির প্যাকেট মাস্ট। আর বোনের তরফ থেকে উপহারে মিলত শার্ট কিংবা প্যান্টের পিস। তবে ভাইফোঁটার উপহারের লিস্টে এখন আমূল পরিবর্তন এসেছে। উপহারটা হয়ে গিয়েছে প্রয়োজন ভিত্তিক। অর্থাৎ দাদা কিংবা বোন আগে থেকেই একে অপরকে জানিয়ে রাখে তার ঠিক কী প্রয়োজন। সেই অনুযায়ী সদ্য চাকরি পাওয়া ভাই যেমন ভাইফোঁটার আগেই দিদিকে ল্যাপটপ কিনে দেয় তেমনই নব্য বিবাহিতা দিদি ভাইয়ের আবদার মিটিয়ে কিনে দেয় দামি ফোন বা ভাল ক্যামেরা। রাত পোহালেই ভাইফোঁটা। তাই আগাম উপহার কিছু না পেয়ে থাকলে এই বেলা প্ল্যান সেরে রাখুন। চটজলদি উপহারের কথা ভাবলে লিস্টে রাখতে পারেন টিশার্ট, কফি মগ, পারফিউম, পেন, বই, চকোলেট থেকে শুরু করে নানা রকম ইলেকট্রনিক্স গ্যাজেটস। এ ছাড়াও সময় থাকলে নিজে হাতেই বানিয়ে দিন ফোটোফ্রেম, কোলাজ কিংবা কার্ড। আগে থেকে প্ল্যান থাকলে টিশার্ট বা পঞ্জাবিতেও ফ্যাব্রিক করে দিতে পারেন।



স্বাতী’জ কিচেন

আর এই দিন তো জমিয়ে খাওয়া মাস্ট। নিজের হাতে রেঁধে ভাইকে খাওানোর সুযোগ থাকলে অবশ্যই খাওয়ান। আর সময় না থাকলে অফিস ফেরত চলে যেতে পারেন কোনও রেস্তোরাঁয়। বা বাড়িতেও আনিয়ে নিতে পারেন। এ ছাড়াও এখন হোম বেসড কিচেন বেশ জনপ্রিয়। যেহেতু এখন প্রত্যেকেই স্বাস্থ্য সচেতন, তাই সেই কথা মাথায় রেখে বাড়ির রান্নার স্বাদে তারা বানাচ্ছেন মুখরোচক সব খাবার। সেখানে কেক, পেস্ট্রি, কাবাব থেকে শুরু করে আইসক্রিম সবই পাওয়া যাবে।



এত গেল ভাইদের পালা। বোন-দিদিদের দিকেও তো একটু নজর দিতে হবে। বছরে রাখি আর ভাইফোঁটা মাত্র এই দুই দিন তারাও সুযোগ পান ভাই-দাদাদের থেকে উপহার আদায় করার। আসলে এই দুই বিশেষ দিন সম্পর্কের উষ্ণতা ঝালিয়ে নেওয়ার পালা। প্রায় সব মেয়েই সাজতে গুজতে ভালবাসেন। অতএব লিপস্টিক, নেলপলিশ, আইলাইনার সব থাকতে পারে। পছন্দ মতো পোশাক, সিডি, গল্পের বই, ঘর সাজানোর টুকিটাকি যা খুশি তাই দিতে পারেন। এ ছাড়া চকোলেট সব মেয়েই ভালবাসে। তাই লিস্টে অবশ্যই থাকুক নানা রকম চকোলেট। বোনের বাড়ি যাচ্ছেন। তাই মিষ্টি আনতেই পারেন। দীপাবলি এবং ভাইফোঁটা স্পেশ্যাল নানা মিষ্টিও পাওয়া যাচ্ছে। সুতরাং আর দেরি নয়। মিষ্টি মুখে জমে উঠুক ভাইফোঁটার সেলিব্রেশন।

আরও পড়ুন

Advertisement