রাহুল গাঁধীর উত্তরসূরি হিসাবে দলের প্রয়োজন তরুণ রক্ত। রাজীব তনয়ের ইস্তফা নিয়ে যখন আতান্তরে কংগ্রেস, সেই সময় দলীয় নেতৃত্বকে এমনই পরামর্শ দিলেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরেন্দ্র সিংহ। প্রগতিশীল মনোভাবাপন্ন কোনও তরুণ নেতা, যিনি দলকে উদ্বুদ্ধ করতে পারবেন, এমনই কারও হাতে কংগ্রেসের রাশ দেখতে চান বলে জানিয়েছেন তিনি।

নেতৃত্ব নির্বাচন-সহ দলের হয়ে যাবতীয় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয় কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি। তাদের উদ্দেশেই সম্প্রতি এমন বার্তা দেন অমরেন্দ্র। শুক্রবার নিজের টুইটার হ্যান্ডলে তিনি লেখেন, “রাহুল গাঁধীর পদত্যাগের সিদ্ধান্ত অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। ওঁর জায়গায় এ বার তরুণ কোনও নেতাকে কংগ্রেস সভাপতি দেখতে চাই। এমন এক জন যিনি নিজের ব্যক্তিত্বের মাধ্যমে দলকে উদ্বুদ্ধ করতে পারবেন। কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির কাছে আমার অনুরোধ, যুব সমাজের প্রয়োজন বুঝে কোনও তরুণ নেতাকে দায়িত্বে আনুন, যুব সমাজের আশা আকাঙ্খা বুঝবেন যিনি, যুব সমাজের সঙ্গে শিকড়ের যোগ থাকবে যাঁর।”

২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে মা সনিয়া গাঁধীর হাত থেকে কংগ্রেসের দায়িত্ব গ্রহণ করেন রাহুল গাঁধী। কিন্তু সাম্প্রতিক লোকসভা নির্বাচনে দলের ভরাডুবির জন্য তাঁর দিকেই আঙুল ওঠে। তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে সর্বত্র। এ সবের মধ্যেই, ভোটের ফলাফল ঘোষণার দু’দিনের মাথায় কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দেন রাহুল। সেই সময় তিনি জানান, “দলের ভবিষ্যতের জন্যই এই দায় স্বীকার জরুরি। তাই কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলাম।”

আরও পড়ুন: লিটারপিছু প্রায় আড়াই টাকা দাম বাড়ল পেট্রল-ডিজেলের, কলকাতায় পেট্রল ৭৫.১৫ টাকা​

আরও পড়ুন: ধোনির অবসরের জল্পনা উস্কে টুইটারে ভিডিয়ো প্রকাশ আইসিসির​

সেই থেকে দফায় দফায় রাহুল গাঁধীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন দলের শীর্ষ নেতারা। সিদ্ধান্ত বদলাতে অনুরোধ জানিয়েছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত নিজের সিদ্ধান্তে অনড় রাহুল। যত শীঘ্র সম্ভব তাঁর বিকল্প খুঁজে বার করার আর্জি জানিয়েছেন। যার পর ৭৬ বছর বয়সী মল্লিকার্জুন খড়্গে এবং ৭৭ বছর বয়সী সুশীলকুমার শিন্ডের মতো প্রবীণ নেতার নাম সামনে এসেছে। দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা সম্পন্ন এই দুই নেতার মধ্য থেকে এক জনকে কংগ্রেস সভাপতি বেছে নেওয়া হয়ে পারে বলে জল্পনা। তবে তার মধ্যেই তরুণ নেতাকে আনার সুপারিশ করে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন অমরেন্দ্র সিংহ।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।