প্রথম থেকেই বিতর্কিত এই ওয়েবসিরিজ।‘সেক্রেড গেমস।’ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গাঁধীকে এই সিরিজে অবমাননা করার অভিযোগও উঠেছে। তবে এতে একেবারেই বিচলিত নন রাজীব পুত্র। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধী স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, বাক-স্বাধীনতাকে নিয়ন্ত্রণ করা অর্থহীন।

কংগ্রেস সভাপতি বললেন, ওয়েবসিরিজের  কোনও কাল্পনিক চরিত্র দেশের প্রতি তাঁর বাবার আত্মত্যাগকে খাটো করতে পারে না। আর বাক-স্বাধীনতার অধিকার সকলেরই রয়েছে। টুইটবার্তায় রাহুল জানান, রাজীব গাঁধী দেশের জন্যই জীবন কাটিয়েছেন। প্রাণও দিয়েছেন দেশের জন্য।

নেটফ্লিক্সের ওয়েব সিরিজটির বিরুদ্ধে মামলা রুজু হয়ে গিয়েছে কলকাতার গিরিশ পার্ক থানায়৷ অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি ও পরিচালক-প্রযোজকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস নেতা রাজীব সিংহ৷ এবার নীরবতা ভেঙে ‘সেক্রেড গেমস’ ইস্যুতে মুখ খুললেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল।

আরও পড়ুন: কমছে সোনা-রুপোর দাম, জে​নে রাখুন এই বিষয়গুলি

প্রয়াত বাবার প্রসঙ্গ ছাড়াও টুইটবার্তায় বিজেপি ও রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের (আরএসএস) বিরুদ্ধে তোপ দাগেন রাহুল। বলেন, বিজেপি এবং আরএসএস সবসময় বাক-স্বাধীনতাকে খর্ব করার চেষ্টা করে। কিন্তু কংগ্রেস একটি গণতান্ত্রিক দল।

কংগ্রেসকে এই ইস্যু নিয়ে বারবার বিদ্ধ করেছে বিজেপি। বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য এই সংক্রান্ত কয়েকটি টুইটও করেন। এরপরই পাল্টা টুইট করলেন রাহুল।

জাগুয়ারকে কুমির শিকার করতে দেখেছেন কখনও? দেখুন ভিডিয়ো

সেক্রেড গেমস নামের ক্রাইম-থ্রিলারটির পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ ও বিক্রমাদিত্য মোতওয়ানে৷ কংগ্রেসের শাসনকালে মুম্বইয়ের অপরাধ জগতকে দেখানোর পাশাপাশি, উল্লেখ রয়েছে ইন্দিরা গাঁধীর আমলে জরুরি অবস্থা। সেখানে স্পষ্ট ছাপ রয়েছে বোফর্স কেলেঙ্কারি ও ১৯৮৫ সালের শাহবানু মামলার৷এই ঘটনায় কীভাবে নাম জড়িয়েছিল প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গাঁধীর, সে বিষয়টিরও উল্লেখ রয়েছে এতে৷ এই ওয়েব সিরিজে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে কটূক্তি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছিল।

কলকাতা ছাড়াও সেক্রেড গেমসের বিরুদ্ধে দিল্লি হাই কোর্টেও একটি মামলা রুজু হয়েছে৷ যেখানে বিতর্কিত অংশগুলি ওয়েবসিরিজ থেকে বাদ দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: এ বার বিধান দেবেন রূপান্তরকামী বিধান