রেস্তরাঁয় ছোট পোশাক পরে বন্ধুদের সঙ্গে খেতে গিয়েছিলেন এক তরুণী। আর সেই জন্য সেখানে উপস্থিত সাত জন পুরুষকে ওই মেয়েটিকে ধর্ষণ করার কথা বলে বিতর্কে জড়ালেন এক মাঝবয়সি মহিলা। পরে ওই মেয়েটি ও তাঁর কয়েক জন বান্ধবী একটি শপিং মল পর্যন্ত ওই মহিলার পিছু নেন। দু’পক্ষের প্রবল বাদানুবাদের একটি ভিডিয়ো কাল থেকে ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ওই মহিলার ছোট পোশাক পরা একটি ছবিও আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। আজ হু হু করে শেয়ার করা হচ্ছে সেই ছবিটিও।

গুরুগ্রামের ঘটনা। বাদানুবাদের যে ভিডিয়োটি ছড়িয়ে পড়েছে সেটি প্রায় ন’মিনিটের। তাতে দেখা গিয়েছে, ফুল ছাপা কুর্তি আর নীল লেগিংস পরা এক মহিলাকে এক তরুণী বলছেন, ‘‘যে কথা আমায় আপনি বলেছেন, তার জন্য এখনই ক্ষমা চান, না হলে আপনার জীবন আমি নরক করে তুলব। সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনাকে ভাইরাল করে দেব।’’ যিনি কথা বলছিলেন, সেই তরুণীকে দেখা যায়নি ওই ভিডিয়োয়। তবে ওই মহিলা বারবার মাথা নেড়ে বলতে থাকেন যে তিনি ক্ষমা চাইবেন না। তরুণীটি এর পর নিজে থেকেই অভিযোগ করে বলেন, একটি রেস্তরাঁয় তিনি ও তাঁর কিছু বান্ধবী গিয়েছিলেন। তাঁর পোশাক ছোট হওয়ায় ওই মহিলা সেখানে কিছু পুরুষকে বলেন মেয়েটিকে ধর্ষণ করতে। 

গোটা ভিডিয়োয় আর এক মহিলাকে তর্কে জড়িয়ে পড়তে দেখা যায়। যিনি দাবি করেছেন ওই তরুণীর দলটিকে তিনি চেনেন না। কিন্তু তাঁর বক্তব্য, ওই মহিলা যা বলেছেন, অবিলম্বে তার জন্য তরুণীটির কাছে তাঁর ক্ষমা চাওয়া উচিত। কিন্তু ওই মহিলা হুমকি দেন, যে ভাবে তাঁকে অপদস্থ করা হচ্ছে তার জন্য তিনি পুলিশ ডাকবেন। তরুণীর দল ভিডিয়োয় দাবি করেছে ওই মহিলা যে মেয়েটিকে ধর্ষণ করার জন্য উস্কানি দিচ্ছেন, রেস্তরাঁর সিসি ক্যামেরায় তার ফুটেজ পাওয়া যাবে। যদিও গুরুগ্রাম পুলিশ এখনও পর্যন্ত এ নিয়ে কোনও লিখিত অভিযোগ পায়নি বলেই দাবি করেছে। ওই মহিলাও দাবি করেন, সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সামনে আনলেও তাঁর কিচ্ছু যায় আসে না।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

ভিডিয়োর একদম শেষের দিকে ওই মহিলাটিকে এক তরুণীর তাক করা মোবাইলের ক্যামেরার সামনে সোজাসুজি তাকিয়ে বলতে শোনা যায়, ‘‘সকলকে হ্যালো। এই মেয়েরা ছোট পোশাক পরে সবাইকে সব কিছু দেখাতে চায়। ঠিক আছে? খুব ভাল। সব মেয়ে ছোট ছোট পোশাক পরো, বা নগ্ন থাকো যাতে তোমাদের ধর্ষণ করা যায়। আপনারা যদি অভিভাবক হন, নিজেদের মেয়েদের সামলান দয়া করে।’’