প্রচণ্ড ধুলো ঝড়ের জন্য বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে দিল্লি বিমানবন্দরে বিমান ওঠা-নামা বন্ধ হয়ে যায়। দিল্লিতে নামতে যাওয়া একের পর এক বিমান বাধ্য হয়ে মুখ ঘুরিয়ে অন্য শহরে চলে যায়।

বাগডোগরা থেকে এয়ার এশিয়ার উড়ানে দিল্লি যাচ্ছিলেন কলকাতার বাসিন্দা অভিজিৎ ঘোষ। তিনি জানান, বুধবার বিকেল ৫টা ১০ মিনিটে বিমান ছেড়ে দিল্লির আকাশে পৌঁছে যায় সাতটা নাগাদ। কিন্তু, পাইলট ঘোষণা করেন, নামার লাইনে সাত নম্বর থাকলেও খারাপ আবহাওয়ার কারণে বিমান অন্য শহরে নিয়ে যেতে হচ্ছে। অভিজিৎ বলেন, ‘‘সাড়ে সাতটা নাগাদ লখনউ বিমানবন্দরে আমাদের বিমান নামে। রাত পর্যন্ত বিমানের ভিতরেই বসিয়ে রাখা হয়। রাত ন’টার পরে বিমান আবার দিল্লির দিকে রওনা হয়।’’

সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, দিল্লি বিমানবন্দরে ধুলোর ঝড় শুরু হয় বুধবার সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটে। তার ৪ মিনিট আগেও বিমান নেমেছে সেখানে। ২ মিনিট আগে দিল্লি থেকে একটি বিমান উড়েও যায়। কিন্তু, তার পরে বিপরীতমুখী হাওয়ার দাপট ও সঙ্গে ধুলোর জন্য সব বিমান ওঠা-নামাই বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় ৩৫ মিনিট ধরে ওই ধুলো ঝড় চলে। ওই সময়ের মধ্যে দিল্লিতে নামতে আসা প্রচুর বিমান মুখ ঘুরিয়ে অন্য শহরে উড়ে যায়। দিল্লি বিমানবন্দরের তরফে জানানো হয়েছে, ধুলো ঝড়ের কারণে নামতে আসা প্রায় ২৭টি বিমান মুখ ঘুরিয়ে অন্য শহরে উড়ে যায় এ দিন। 

গত কয়েক দিন ধরেই রাজধানী তাপপ্রবাহের শিকার। আবহাওয়াবিদদের ধারণা, তাপমাত্রা ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি হয়ে যাওয়ায় এই ধুলো ঝড় হয়েছে। এর ফলে, দিল্লির তাপমাত্রা কিছুটা কমবে।  

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।