দক্ষিণ আমেরিকার ফরাসি উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে আকাশে উড়ল  ভারতের সব থেকে শক্তিশালী কৃত্রিম উপগ্রহ ‘বিগ বার্ড’। এই কৃত্রিম উপগ্রহের ওজন ৫,৮৫৪ কেজি। ‘বিগ বার্ড’-ই ভারতের সব থেকে ভারী এবং শক্তিশালী কৃত্রিম উপগ্রহ। ভারতীয় সময় রাত দুটো বেজে সাত মিনিটে এই উৎক্ষেপণ হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো)

দক্ষিণ আমেরিকার ফ্রেঞ্চ গায়ানার ফরাসি উৎক্ষেপণ কেন্দ্র স্পেসপোর্ট থেকে আকাশে পাঠানো হয়েছে বিগ বার্ডকে। এই কৃত্রিম উপগ্রহের জন্য নিশ্চিত ভাবেই প্রযুক্তিগত দিক থেকে অনেকটাই এগিয়ে যাবে ভারত। আরও উন্নত হবে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা। এর পর থেকে দেশের অধিকাংশ বিমানেই মিলবে ইন্টারনেট পরিষেবা। পাশাপাশি কেবল দিয়ে ইন্টারনেট যেখানে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব নয়, সেই সব দুর্গম জায়গাতেও পাওয়া যাবে ইন্টারনেট পরিষেবা। অর্থাৎ, আরও কার্যকরী হবে ডিজিটাল ইন্ডিয়া।

ইসরো প্রধান কে শিভান জানিয়েছেন, ‘‘জি স্যাট -১১ হল পরবর্তী প্রজন্মের যোগাযোগ বা কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট। সারা ভারতে ব্রডব্যান্ড পরিষেবার উন্নতিতে এই স্যাটেলাইটের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়াবে। নতুন প্রজন্মের বিভিন্ন পরিষেবা এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে পাবে দেশের মানুষ।’’

আরও পড়ুন: এক কেজির দাম পঞ্চাশ পয়সা, ক্ষিপ্ত চাষিরা পেঁয়াজ খাওয়ালেন গরুকে!

জি স্যাট-১১, যাকে বিজ্ঞানীরা ডাকছেন ‘বিগ বার্ড’ নামে, বানাতে খরচ হয়েছে প্রায় ৬০০ কোটি  টাকা। তার জীবনকাল পনেরো বছর, এমনটাই জানাচ্ছে ইসরো। এই মুহূর্তে আকাশে সবকটি ভারতীয় কৃত্রিম উপগ্রহের ক্ষমতা  যোগ করলে যা হয়, তার থেকেও বেশি ক্ষমতা ‘বিগ বার্ড’-এর। ৫,৮৫৪ কিলোগ্রাম ওজনের কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠানোর ক্ষমতা এই মুহূর্তে ভারতের উৎক্ষেপণ কেন্দ্রগুলিতে নেই। সেই কারণে ভাড়া করা হয়েছিল দক্ষিণ আমেরিকার ফরাসি উৎক্ষেপণ কেন্দ্রটি, সংবাদ সংস্থাকে এমনটাই জানানো হয়েছে ইসরোর তরফে।

আরও পড়ুন: ‘পরিবেশ-যুদ্ধে বেদই অনুপ্রেরণা’ মোদী-বার্তায় মুগ্ধ গুতেরেস

(দেশজোড়া ঘটনার বাছাই করা সেরা বাংলা খবর পেতে পড়ুন আমাদের দেশ বিভাগ।)