• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পারিবারিক ঝগড়াতেই কি লালুর স্বাস্থ্যহানি

Lalu
—ফাইল চিত্র।

বাবার স্বাস্থ্য নিয়ে তিনি এবং তাঁদের পরিবার খুবই উদ্বিগ্ন। বাবা লালুপ্রসাদ যাদবকে দেখে রাঁচীর রিমস থেকে বেরিয়ে শনিবার দুপুরে এই উদ্বেগের কথাই বেশি করে বললেন আরজেডি নেতা তথা লালু-তনয় তেজস্বী যাদব। 

শুক্রবার তেজস্বী রাঁচীতে আসেন। আজ সকালে তিনি রিমসে ঢোকেন। বাবার সঙ্গে মিনিট কুড়ি কথাও বলেন তিনি। পরে হাসপাতালের বাইরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তেজস্বী বলেন, ‘‘বাবার স্বাস্থ্যের যতটা উন্নতি হবে ভেবেছিলাম তা  হয়নি। তাঁর স্বাস্থ্য মোটেই স্থিতিশীল নয়। সুগার ওঠানামা করছে।’’ তাঁর কথায়, ‘‘সপ্তাহখানেক আগে বাবা হাসপাতালে মাথা ঘুরে পড়ে যাওয়ার পর থেকে উদ্বেগ বেড়ে গিয়েছে।’’ 

লালুর চিকিৎসক উমেশ প্রসাদ বলেন, ‘‘লালুজির ক্ষেত্রে সব থেকে বেশি চিন্তার ওঁর অনিয়ন্ত্রিত সুগার। নিয়মিত ইনসুলিন দিতে হচ্ছে। মাঝে মধ্যে ডিপ্রেশনেও ভুগছেন।’’ তবে লালুর ঘনিষ্ঠ মহলের বক্তব্য, লালুর ‘ডিপ্রেশন’-এর মূলে  তাঁর উচ্চাকাঙ্খী পুত্র-কন্যাদের মধ্যের গৃহ বিবাদ। এর জেরে আগামী লোকসভা ভোটে কী হবে, সেটি তাঁকে বেশি ভাবাচ্ছে। 

রাজনৈতিক সূত্রে খবর, ছোট ছেলেকে তিনি ডেকে পাঠান। দু’জনের কী কথা হয়েছে তা নিয়ে তেজস্বী মুখ না খুললেও ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর, দাদা তেজপ্রতাপের কাজে অখুশি তেজস্বী। তা বাবাকে জানান। বড়দি মিসা ভারতীর উপরেও ক্ষুব্ধ তিনি। দলের কাজ, লোকসভা ভোট, দলীয় প্রার্থী, কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা ইত্যাদি নিয়েও ছেলেকে পরামর্শ দেন লালু। আর পারিবারিক পরিস্থিতি সামাল দিতে লালু রাঁচীতেই মিসাকে ডেকে পাঠাচ্ছেন। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন