পুলওয়ামা কাণ্ড দু’দেশের সম্পর্ককে জটিল করে তুলেছে। যদিও কর্তারপুর করিডর আলোচনার টেবিলে বসিয়ে দিতে পারল ভারত ও পাকিস্তানকে। শিখ তীর্থযাত্রীদের জন্য কর্তারপুর করিডর চালুর ব্যাপারে বৃহস্পতিবার অমৃতসরের আটারিতে আলোচনায় বসল ভারত ও পাকিস্তানের প্রতিনিধিদল। তবে দু’দেশের প্রতিনিধিদলের তরফেই জানানো হয়েছে, কর্তারপুর নিয়ে বৈঠক পূর্ব নির্ধারিত ছিল।

পুলওয়ামা কাণ্ডের পর দু’দেশ তো এই প্রথম আলোচনার টেবিলে বসলই, কর্তারপুর করিডর নিয়েও সরকারি স্তরে ভারত ও পাকিস্তানের এটাই প্রথম বৈঠক।

ওই করিডর চালু হলে পঞ্জাবের গুরদাসপুর জেলা থেকে সহজেই পাকিস্তানের কর্তারপুর শহরে দরবার সাহিব গুরুদ্বারে যেতে পারবেন শিখ তীর্থযাত্রীরা।

 

এ দিনের আলোচনায় ভারতীয় প্রতিনিধিদলের নেতৃত্বে ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের যুগ্ম সচিব এস সি এল দাস। আর পাকিস্তানি প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন বিদেশমন্ত্রকের দক্ষিণ এশিয়া ও ‘সার্ক’ বিভাগের ডিরেক্টর জেনারেল মহম্মদ ফয়জল। বৈঠকের পর এক যৌথ বিবৃতিতে জানানো হয়, আলোচনা হয়েছে খুবই আন্তরিক ভাবে। ওই করিডর চালুর জন্য দু’দেশের মধ্যে যে চুক্তি হবে, তার খসড়া নিয়েও আলোচনা হয়েছে। পরের বৈঠক হবে ওয়াঘায়। আগামী ২ এপ্রিল।

আরও পড়ুন- ভারতকে গুগলি দিয়েছেন ইমরান, করতারপুর করিডর নিয়ে নয়াদিল্লিকে কটাক্ষ পাক বিদেশমন্ত্রীর​

আরও পড়ুন- ‘আপনি যদি এতই উদার, মাসুদকে ভারতের হাতে তুলে দিন’, ইমরানকে কটাক্ষ সুষমার​