ইভিএম কারচুপির অভিযোগ নিয়ে উদ্বিগ্ন প্রণব মুখোপাধ্যায়
(এই খবরটি প্রথম প্রকাশের সময় ইভিএম কারচুপি নিয়ে প্রণববাবু বিরোধীদের খোঁচা দিয়েছেন বলে বলা হয়েছিল। কিন্তু সেটা ঠিক নয়। তিনি আদপে ইভিএম-এর নিরাপত্তা ও স্বচ্ছতা বজায় রাখার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব ও ভূমিকার কথাই স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। এই অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমরা দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী।)
Pranab Mukherjee

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। —ফাইল চিত্র

ইভিএম কারচুপি নিয়ে সরব কংগ্রেস-সহ বিরোধীরা। কমিশনে নালিশ জানানো থেকে দলীয় কর্মীদের ইভিএম পাহারা দেওয়ার মতো পদক্ষেপ করেছে ২২ দলের বিরোধী জোট। তার মধ্যেই বিষয়টি নিয়ে এ বার উদ্বেগ প্রকাস করলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। ‘‘গণতন্ত্রের ভিত্তি নিয়ে প্রশ্ন ওঠা উচিত নয়’’—মঙ্গলবার দিল্লিতে একটি অনুষ্ঠানে মন্তব্য প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির। তা ছাড়া ইভিএমের সুরক্ষা এবং নিরাপত্তার দায়িত্ব কমিশনের বলেও মন্তব্য করেন প্রণব। 

সোমবার তিনি বলেছিলেন, ‘পারফেক্ট ভোট’। নির্বাচন কমিশনের ভূমিকার প্রশংসা করে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির বক্তব্য ছিল, ‘‘গণতন্ত্র সফল হলে তার কৃতিত্ব সঠিক ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া। সুকুমার সেন থেকে বর্তমান নির্বাচন কমিশনার পর্যন্ত সবাই এই দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করেছেন।’’ কিন্তু মঙ্গলবার রাজনৈতিক পরিস্থিতি অনেকটাই পাল্টেছে। এ দিনই নির্বাচন কমিশনে ইভিএম কারচুপি নিয়ে অভিযোগ জানিয়ে এসেছে বিরোধী দলগুলির জোট। ইভিএম-এ কারচুপির অভিযোগ তুলে একাধিক ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরছে। এই পরিস্থিতিতে ফের মুখ খুললেন প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা।

কংগ্রেসের নেতৃত্বে বিরোধীদের অভিযোগে আমল দেয়নি নির্বাচন কমিশন। কিন্তু এ বার সেই ইভিএম কারচুপি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রণববাবু বলেন, ‘‘জনসাধারণের রায় বিন্দুমাত্রও সন্দেহের ঊর্ধ্বে থাকা উচিত। গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানের প্রতি কঠোর বিশ্বাসী হিসেবে আমার মত, যাঁরা পরিচালনা করেন, তাঁদের উপরই নির্ভর করে প্রতিষ্ঠান কী ভাবে চলবে।’’

আরও পড়ুন: গরমিল থাকলেই সমস্ত ভিভিপ্যাটের সঙ্গে মেলাতে হবে ইভিএম, নির্বাচন কমিশনে দাবি বিরোধীদের

আরও পড়ুন: আজ রাতেই হবে ইভিএম কারচুপি, কমিশনকে চিঠি আপ নেতার, স্ট্রং রুমে পাহারা বিরোধীদের

সোমবার কমিশনের ভূমিকার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেও জনগণের রায় সুরক্ষিত ও নিরপেক্ষ রাখার ভার কমিশনের উপরেই বর্তেছেন বর্ষীয়ান রাজনীতিক প্রণববাবু। মঙ্গলবার তিনি বলেন, ‘‘প্রতিষ্ঠানগুলির ঐক্য ও সংহতি বজায় রাখার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। কমিশনের উচিত সেটা রক্ষা করা এবং সমস্ত সন্দেহ দূর করা।’’

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত